গলতিতে স্বামীকে খুনের অভিযোগে গ্রেপ্তার স্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন, গলসি: স্বামীকে খুনের অভিযোগ স্ত্রীর বিরুদ্ধে। অভিযোগ, নিজেদের মধ্যে বচসার জেরে স্বামীর মাথায় ছোট গ্যাস সিলিন্ডার দিয়ে আঘাত করায় মৃত্যু কোলে ঢলে পড়েন স্বামী। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে রবিবার সকালে গলসি থানার ভুঁড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের কালীমোহনপুর গ্রামে। মৃতের নাম সন্তোষ কুমার মজুমদার ওরফে সুনীল মিস্ত্রি (৬২)। তিনি পেশায় কাঠ মিস্ত্রি। ঘটনায় অভিযুক্ত মৃতের স্ত্রী আইসিডিএস কর্মী শ্রীমতি মজুমদারকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
মৃতার মেয়ে শর্মিলা বিশ্বাসের দাবি, ‘মা আমার বাবাকে পছন্দ করতেন না। সাংসারিক জীবনে কোনও দিন শান্তি দেননি বাবাকে। আমার জীবনটাও নষ্ট করেছেন মা। বাবার ওপর খুব অত্যাচার করতেন। এই সমস্ত কারণে আমিও বিয়ের পর থেকে বাপের বাড়িতে আসতে পারতাম না। এখন বাবা মারা গিয়েছে শুনে এসেছি। জানতে পেরেছি বাবাকে মা মারধর করেছেন। তাতেই বাবা মারা গিয়েছেন। এইরকম মায়ের কোনও দরকার নেই আমার। আমি চাই, মায়ের যেন কঠোর শাস্তি হয়।’
জানা গিয়েছে, বাড়ির পাশেই কাঠের কাজ করতেন সন্তো¡ বাবু। স্থানীয়দের দাবি, দীর্ঘদিন ধরে সন্তোষ ও শ্রীমতির মধ্যে পারিবারিক অশান্তি চলছিল। এদিন সকালেও দু’জনের মধ্যে ঝামেলা হয়। এরপর সকাল আটটা নাগাদ সন্তোষবাবু রেশন এনে বাড়ির কাছেই তা¥র কাঠের দোকানে কাজ করতে চলে যান। সকাল ন’টা নাগাদ দোকানের কাছে আহত অবস্থায় সন্তোষবাবুকে পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয়রা।
ঘটনার পর সন্তোষবাবুর স্ত্রীকে খবর দেওয়া হলে তাঁর স্ত্রী শ্রীমতি ঘটনাস্থলে আসতে চাননি বলে অভিযোগ। স্থানীয়দের সন্দেহ হওয়ায় পুলিশকে খবর দেন তাঁরা। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতের স্ত্রীকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। পুলিশ জানিয়েছে, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্ত তাঁর দোষ স্বীকার করেছেন। পাশাপাশি মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য বর্ধমান মেডিক্যালে পাঠায় পুলিশ। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। তবে এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *