পাত্রী খুঁজে দেওয়ার আবদার জানিয়ে সটান থানায় যুবক

বিয়ের বয়স পেরিয়ে যাচ্ছে। বন্ধু-বান্ধব থেকে আত্মীয়-স্বজন, সবাইকেই বলে রেখেছেন পাত্রী খুঁজে দেওয়ার জন্য। কেউই খুঁজে এনে দিতে পারছেন না পছন্দসই পাত্রী। নিরুপায় হয়ে চরম পদক্ষেপ করলেন যুবক। সোজা গিয়ে হাজির হলেন থানায়। পুলিশকেই বললেন, পাত্রী খুঁজে দিতে। ঘটনাটি ঘটেছে কেরলের কাডাক্কালে। অনিল জন নামক এক ৩২ বছরের যুবক একাই থাকেন। ১০০ দিনের কাজ করে, খবরের কাগজ বিলি ও লটারির টিকিট বিক্রি করে তাঁর সংসার চলে। একজন সঙ্গীর দরকার, কিন্তু বিয়ে করার জন্য পাত্রী খুঁজে পাচ্ছিলেন না। পরিবারের সদস্য থেকে শুরু করে যে চার্চে প্রার্থনা করতে যান, সবাইকেই বলেছিলেন একজন যোগ্য পাত্রী খুঁজে দিতে। কিন্তু যুবকের একটি চোখে সামান্য সমস্যা থাকায় কেউ-ই বিয়ে করতে রাজি হচ্ছিলেন না। শেষে সটান থানায় হাজির হয়ে পুলিশকেই বলেন তাঁর জন্য পাত্রী খুঁজে দিতে। খোঁজ-খবর নিয়ে পুলিশ জানতে পারে যে যুবকের সব কথা সত্যি। কিন্তু পুলিশের কাজ তো আর পাত্রী খোঁজা নয়। তাই ওই যুবককে নিয়ে তাঁরা ঘটকের কাছে যান। চলছে যুবকের পাত্রী খোঁজা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *