দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ঘরোয়া টি-২০ সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে বিরাটকে

কেরিয়ারের সবচেয়ে খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন টিম ইন্ডিয়ার সদ্যপ্রাক্তন অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এবার সম্ভবত আরও বড় ধাক্কা খেতে চলেছেন বিরাট। বোর্ডের একাংশ নাকি এবার টি-২০ ফরম্যাট থেকে বিরাটকে ছেঁটে ফেলতে চাইছে। তেমনটাই দাবি করেছে এক ক্রিকেট ওয়েবসাইট।

ওই ক্রিকেট ওয়েবসাইটের সূত্রের দাবি অনুযায়ী, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজেই বিরাটকে ছেঁটে ফেলা হতে পারে। যদিও সরাসরি বাদ না বলে সম্মানজনকভাবে ‘বিশ্রাম’ দেওয়ার কথা জানাবেন নির্বাচকরা। নাম জানাতে অনিচ্ছুক বোর্ডের এক কর্তা জানিয়েছেন, বিরাট ভারতীয় ক্রিকেটের বিরাট বড় সেবক। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরে ওর ফর্ম নির্বাচক মণ্ডলী এবং বিসিসিআইকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছে। বিসিসিআইয়ের ওই কর্তার দাবি, বোর্ড নির্বাচক মণ্ডলীর কাজে কোনওরকম বাধা দেবে না, বা নির্বাচকমণ্ডলীর উপর চাপ সৃষ্টি করবে না। তবে, নির্বাচকরাই বিরাটের ফর্ম নিয়ে চিন্তিত। বোর্ডের ওই কর্তা স্পষ্ট ইঙ্গিত দিয়েছেন, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে আসন্ন সিরিজে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে বিরাটকে।

বিসিসিআইয়ের একটি সূত্র বলছে, শুধু দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ নয়, বোর্ডের একাংশ চাইছে ওয়ার্কলোড ম্যানেজমেন্টের জন্য টি-২০ ফরম্যাট থেকেই বিদায় নিন কোহলি। প্রকাশ্যে কেউ এ বিষয়ে মুখ না খুললেও বোর্ডের অন্দরে গুঞ্জন আইপিএলের শেষ পর্যন্ত ফর্মে না ফিরলে টি-২০ বিশ্বকাপের দলে কোহলিকে পাঠানো হবে কিনা, তা নিয়ে বড়সড় প্রশ্নচিহ্ন উঠে গিয়েছে। কারণ বিরাট যেখানে লাগাতার ব্যর্থ হচ্ছেন, সেখানে মিডল অর্ডারে তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী ব্যাটাররা লাগাতার ভাল ফর্ম দেখাচ্ছেন। মোট কথা, ভারতীয় টি-২০ দলে বিরাট আর ‘অটোমেটিক চয়েস’ নন।

বোর্ডের আরেকটা সূত্র অবশ্য বলছেন, এখনই কোহলিকে পুরোপুরি ছেঁটে ফেলার কথা ভাবা হচ্ছে না। তবে টানা ক্রিকেট থেকে অব্যাহতি দিতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তাঁকে বিশ্রাম দেওয়া হতে পারে। যদিও বিরাট চাইলে দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে তিনি খেলতেও পারেন। সে বিকল্পও খোলা রাখা হচ্ছে প্রাক্তন অধিনায়কের সামনে। শোনা যাচ্ছে, আইপিএলের পরই বিরাটের সঙ্গে বসবেন নির্বাচকরা। বিরাট নিজে কী চান, সেটা জানতে চাইবে নির্বাচকমণ্ডলী। তারপরই নেওয়া হবে সিদ্ধান্ত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

15 − 7 =