গরমে বরফ শীতল কফির রকমারি

প্রবল গরমে প্রাণ ওষ্ঠাগত। মন চাইছে ঠান্ডা কিছু।তবে মকটেল, ফলের রস, শরবত বাদ দিয়েও যদি ঠান্ডাতে গলা ভেজাতে চান, এক চুমুকেই হতে চান চাঙ্গা তাহলে কোনও ভালো ক্যাফেতে গিয়ে অর্ডার করতে পারেন আইসড কফি।

গরমের দিনে আমরা সাধারণত, কোল্ড কফি বেছে নিই। কিন্তু জানেন কি, গরম কফির মতো আইসড কফিও কিন্তু বিভিন্ন ধরনের হয়।

আইস কফি-র রকমারি…

আইসড কফি- কফি বরফ, দুধ, ক্রিম দিয়ে পরিবেশন করা হয়। মিষ্টি স্বাদের হয়। এটা ভীষণই জনপ্রিয়।

আইসড এসপ্রেসো-এক্ষেত্রে এসপ্রেসোর সঙ্গে বরফ কুঁচি দিয়ে পরিবেশন করা হয়। কখনও আবার বরফ দেওয়া এসপ্রেসোর সঙ্গে দুধ ও ক্রিম দিয়েও পরিবেশন করা হয়।

কোল্ড ব্রিউ

কোল্ড ব্রিউ ঠান্ডা কফির জগতে বেশ জনপ্রিয়। কফি বিনস দীর্ঘক্ষণ ভিজিয়ে রাখা হয়।৬ থেকে ৩৬ ঘণ্টা পর্যন্ত। আইসড কফির সঙ্গে কোল্ড ব্রিউ-এর মূল তফাত্ হল এটা কখনওই গরম করা হয় না। আইসড কফি বরফ দিয়ে ঠান্ডা করা হয়।

কোল্ড ব্রিউ তৈরি হতে অনেক সময় লাগে। কফি বিনস কতক্ষণ জলে ভিজিয়ে রাখা হচ্ছে, তার ওপর কফি কতটা কড়া হবে, স্বাদ কেমন হবে তা নির্ভর করে। এর সঙ্গে চিনি, ক্রিম সহযোগে পরিবেশন করা হয়।

কোল্ড ব্রিউ বিভিন্ন রকম হয়

ফ্র্যাপুচিনো

কোথাও কোথও ফ্র্যাপুচিনো ঠান্ডা কফির সঙ্গে ক্রিম ও সিরাপ দিয়ে পরিবেশন করা হয়।

নাইট্রো-

কোল্ড ব্রিউ-এর সঙ্গে নাইট্রোজেন বাবল মিশিয়ে এটি তৈরি করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sixteen + one =