সোলো ট্রিপ করছেন? মাথায় রাখুন কয়েকটি বিষয়

পাঁচ বন্ধু মিলে ডুয়ার্স যাওয়ার প্ল্যান করেছিল লগ্নজিতা।প্ল্যান, প্রোগ্রাম, ছুটি, বুকিং সবই যখন চূড়ান্ত তখন শরীর খারাপের জন্য বেঁকে বসল দুজন। বাকি তিন জনও গাঁই-গুঁই শুরু করল বেড়াতে যাওয়ার তিন দিন আগে। কিন্তু মাখায় রোখ চেপে গেছে লগ্নজিতার যেতে তাকেই হবে।

তাই যদি তোর ডাক শুনে কেউ না আসে, তবে একলা চলো রে।

তবে প্রোগ্রাম কিছুটা বদল। একলা গেলে গাড়ি খরচ পুরো দিতে হবে, তাই ডুয়ার্স বদলে দার্জিলিং। একদিন গাড়ি করে আশপাশের গ্রাম।

এরকম পরিস্থিতি অনেকেরই হয়েছে। কখনও মতের অমিল, কখনও সঙ্গীর অভাব, আর সে কারণে বেড়াতে যাওয়া হয় না। সে  সব ঝেরে ঝুড়ে একলা যাওয়াটাই ইদানীং জনপ্রিয় হয়ে উঠছে।যাকে বলা হয় সোলো ট্রিপ।

সোলো ট্রিপের মজা-

নিজের সঙ্গে নিজের সময় কাটানোর এ এক দুর্দান্ত সুযোগ। আপনি যা চাইবেন, যেভাবে চাইবেন ঘুরবেন। কেউ জ্ঞান দেবে না, বাধাও দেবে না।এই স্বাধীনতা, এই ভাললাগাটুকু সোলো ট্রিপ জনপ্রিয় হয়ে ওঠার অন্যতম কারণ।কিন্তু সোলো ট্রিপ করতে গেলে কয়েকটা বিষয় মাথায় রাখতে হবে। আর মহিলা হলে সুরক্ষার দিকটা খেয়াল রাখা ভীষণ প্রয়োজন। মনে রাখবেন সোলো ট্রিপ মানে আপনার দায়িত্ববোধের, উপস্থিত বুদ্ধিরও পরীক্ষা।

নিরাপত্তা- ছেলে হোন বা মেয়ে, নিরাপত্তার দিকটা সকলকেই মাথায় রাখতে হবে।অচেনা লোকজনের সঙ্গে পরিচয় করতে হলে সতর্ক থাকা দরকার। গাড়ি বুক করলে ড্রাইভারের নাম, ফোন নম্বর নিয়ে রাখুন। সম্ভব হলে চালকের পরিচয়পত্রের ফটোকপি চেয়ে নিন।হোটেল বুক করার ক্ষেত্রে ভাল করে রিভিউ পড়ে নিন। জনপ্রিয় হোটেল বুক করাই এক্ষেত্রে ভাল।

বাজেট

সোলো ট্রিপে বাজেট বড় ব্যাপার। কারণ, রুম বা গাড়ি শেয়ারের অপশন না থাকায় খরচ বাড়ে। তাই যে জায়গায় যাবেন সেটা সম্পর্কে ভাল করে ইন্টারনেট ঘেঁটে জেনে নিন। এমন গন্তব্য বাছুন যেখানে শেয়ার গাড়ি পাওয়া যাবে।হোটেলের খরচ কমাতে ইয়ুথ হোস্টেল বা লেডিস হোস্টেলের খোঁজ করতে পারেন।

টাকাপয়সা ও ফোন

ক্যাশ টাকা মজুত রাখুন। সবজায়গায় কার্ডের ব্যবস্থা নাও থাকতে পারে। খুচরো পয়সা রেখে দিন। ব্যাগের বিভিন্ন জায়গায় ও জামার পকেটে টাকা রেখে দিন। সব টাকা নিয়ে বাইরে যাবেন না। কিছু টাকা হোটেলেও রেখে দিন। সেই সঙ্গে মোবাইল ফোনটি সর্বদা চার্জ দিয়ে রাখুন। যাতে বিপদে পড়লে যোগাযোগ করতে পারেন। প্রয়োজনে ব্যাগে একটা অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ফুল চার্জ করে ফেলে রাখুন। সেটা আছে কাউকে দেখানোর বা জানানোর দরকার নেই। প্রয়োজনে সেখানে থেকে জরুরি ফোন করা যায় যাতে, সেই নম্বর সেভ রাখুন।

ওষুধ ও খাওয়াদাওয়া

প্রয়োজনীয় ওষুধ সঙ্গে রাখুন। জ্বর, পেট খারাপ, অ্যাসিডিটি, মাথা ধরার ওষুধ ব্যাগে রাখুন। সেই সঙ্গে নিয়মিত যে ওষুধ খান, সেগুলিও সঙ্গে রাখুন। খাওয়ার ব্যাপারেও সতর্ক থাকুন। যাতে শরীর খারাপ এড়ানো যায়।

 নেশা নয়

একা বেড়াতে গেলে এই বিষয়টির দিকে বিশেষ খেয়াল রাখা অত্যন্ত জরুরি। কখনও বেসামাল হয়ে পড়বেন না। সবসময় হুঁশে থাকার চেষ্টা করুন। মনে রাখবেন, সোলো ট্রিপে নিজের নিরাপত্তা বজায় রাখার এটাও একটা বড় দিক। চারপাশের মানুষ যেন বুঝতে না পারে, আপনার সুযোগ নিতে না পারে।

পোশাক

যে জায়গায় যাচ্ছেন সেখানকার মানুষের সঙ্গে মিশে যেতে পারেন এমন পোশাক পরুন। এমন পোশাক পরবেন না যাতে আলাদাভাবে আপনার দিকে নজর পড়ে।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

four × three =