ভাটপাড়ায় পুরবোর্ড বাতিলের দাবিতে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ তৃণমূল কর্মীদের

ব্যারাকপুর : বেশ কয়েকদিন ধরেই ভাটপাড়ায় পুরবোর্ড গঠন নিয়ে টালবাহানা চলছিল। অবশেষে সোমবার ভাটপাড়ায় গঠিত হল পুরবোর্ড। উপ-পৌরপ্রধান হলেন ১ নম্বর ওয়ার্ড থেকে জেতা দেবজ্যোতি ঘোষ ওরফে টিঙ্কু। এদিন ঘোষিত হয়েছে পাঁচ পৌর পারিষদের নামও। পূর্ত ও জল বিভাগের সিআইসি হলেন যথাক্রমে অরুন ব্রহ্ম ও অমিত গুপ্তা। স্বাস্থ্য, আলো ও জঞ্জাল সাফাই দপ্তরের সিআইসি হয়েছেন যথাক্রমে নূরে ই জামাল, হিমাংশু সরকার ও সমর পাঠক। যদিও এদিন ডাকা হয়নি অন্যান্য কাউন্সিলরদের।

উপ-পৌরপ্রধান-সহ পৌর পারিষদ সদস্যদের এদিন শপথ বাক্য পাঠ করলেন চেয়ারপার্সন রেবা রাহা। এদিকে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান শেষ হতেই পুরসভার ভেতরে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন তৃণমূল কর্মীরা। বিক্ষোভকারীরা সকলেই একমাত্র সংখ্যালঘু প্রতিনিধি ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নূরে ই জামাল অনুগামী। পুরসভার ভেতরে কিছুক্ষন বিক্ষোভ প্রদর্শনের পর তারা পুরসভার সামনে ব্যস্ততম ঘোষপাড়া রোড অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে। ভাটপাড়া থানার পুলিশ বিক্ষোভকারীদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়। তারপর পুরসভার গেটে বসে পড়ে তারা দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভ দেখায়। এমনকি বিক্ষোভে সামিল হয়েছিলেন নূরে ই জামালের স্ত্রী প্রাক্তন বাম কাউন্সিলর আফসানা জামালও। বিক্ষোভ কারী মুন্না মোদি বলেন, ঘোষিত পুরবোর্ড তারা মানছেন না। নতুন করে বোর্ড গঠন করতে হবে। একমাত্র সংখ্যালঘু সদস্য নূরে ই জামালকে ভালো কোনও দপ্তর দেওয়া হয়নি। তাকে উপ-পুরপ্রধান কিংবা পূর্ত দপ্তরের পারিষদ করতে হবে। নইলে তারা আন্দোলন জারি রাখবেন।

অপরদিকে নূরে ই জামালের স্ত্রী আফসানা জামালের অভিযোগ, সমস্ত কাউন্সিলরদের ডাকা হয়নি। মাত্র চার-পাঁচজনকে ডাকা হয়েছিল। এমনকি তার স্বামী জানতেন না এদিন সিআইসি-দের নাম ঘোষিত হবে। সকলকে অন্ধকারে রেখে কেন লুকোচুরি করে পুরবোর্ড গঠন করা হল, তা নিয়ে এদিন প্রশ্ন তোলেন প্রাক্তন পুরমাতা আফসানা জামাল। এপ্রসঙ্গে ভাটপাড়া-১ তৃণমূল সভাপতি তথা উপ-পুরপ্রধান দেবজ্যোতি ঘোষ বলেন, দলের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত। তবে সিদ্ধান্ত কারও মনপ্রুত হয়নি। তাই ক্ষোভে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। কিন্তু পরবর্তীতে কোনও সমস্যা হবে না। সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × two =