আদিবাসী নাবালিকা ধর্ষণ গ্রেফতার পঞ্চায়েত সদস্য

বোলপুর : ঋণ শোধ করতে না পেরে মেয়েকে তৃণমূল নেতার হাতে তুলে দিল বাবা ৷ দিনের পর দিন ওই নাবালিকাকে ধর্ষণ করল তৃণমূল নেতা সহ কয়েকজন। এমনই নৃশংস ঘটনাটি ঘটেছে বোলপুর থানার সিয়ান-মুলুক এলাকায়৷ অভিযুক্ত দীপ্তিমান ঘোষকে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করেছে বোলপুর থানার পুলিশ। ধৃত ব্যক্তি তৃণমূলের সিয়ান-মুলুক গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্য৷ অন্যদিকে, নির্যাতিতা নাবালিকা বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বোলপুর থানার সিয়ান-মুলুক এলাকায় তৃণমূল পঞ্চায়েত সদস্য দীপ্তিমান ঘোষের কাছ থেকে লক্ষাধিক টাকা ঋণ নিয়েছিল নাবালিকার বাবা ৷ সেই ঋণের টাকা পরিশোধ করতে তিনি পারেননি ৷ অভিযোগ, এই জন্য মেয়েকে ওই নেতার হাতে এক প্রকার তুলে দেওয়া দেয় ৷ ৩১ মার্চ থেকে নাবালিকাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে দীপ্তিমান ঘোষ সহ আরও দুজন৷

এই ঘটনায় নির্যাতিতার দিদি বোলপুর থানায় বাবা-মা সহ তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ পেয়েই অতিরিক্ত জেলা পুলিশ সুপার ও বোলপুরের এসডিপিও-র নেতৃত্বে পুলিশ যায় ঘটনাস্থলে। পুলিশ নির্যাতিতাকে বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। অভিযোগের ভিত্তি গণধর্ষণ ,হুমকি ,এস সি এণ্ড এস টি এক্স ও পস্কো আইনে মামলা রুজু করে পুলিশ। অভিযুক্ত তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য দীপ্তিমান ঘোষকে ইতিমধ্যেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷ বাবা সহ বাকি অভিযুক্তদের খোঁজে তল্লাশি চলছে বলে জানান বোলপুরের এসডিপিও অভিষেক রায়।

নির্যাতিতার দিদি বলেন, “বোন ফোনে আমাকে সব জানিয়েছে৷ ও ভয়ে রয়েছে। ও সুস্থ হলে ঘটনা আরও পরিষ্কার হবে৷ আমরা চাই অভিযুক্তরা শাস্তি পাক৷”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eleven − 3 =