হাতির তাণ্ডবে মাথায় হাত আলু চাষিদের

নিজস্ব প্রতিবেদন, বিষ্ণুপুর: আলুর জমির ওপর রাতভর তাণ্ডবলীলা চালাল হাতির দল। বিষ্ণুপুর পাঞ্চেত বন বিভাগের বাকাদহ রেঞ্জের আমডগড়া বিটের গোটশোল এলাকায় চাষিদের অভিযোগ, রাতের বেলায় পশ্চিম মেদিনীপুরের দিক থেকে ২০ থেকে ২৫টি হাতির একটি দল আসে বিষ্ণুপুরের জঙ্গলের দিকে, গোটশোল এলাকায় কৃষকরা বিঘার পর বিঘা আলু চাষ করেছেন, সেখানে তাণ্ডব চালায়।
কৃষকদের দাবি, যখন তাঁরা আলু লাগিয়েছিলেন অকাল বৃষ্টিতে সমস্ত গাছ নষ্ট হয়ে যায়। পুনরায় তাঁরা সেই দুঃখ কষ্ট ভুলে আলু চাষ করেছিলেন, এবার হাতির তাণ্ডবে আলু ঘরে তোলার আগেই মাঠের ফসল মাঠে নষ্ট হয়ে গেল। এমত পরিস্থিতিতে মাথায় হাত কৃষকদের। তাঁরা জানাচ্ছেন, মহাজনের কাছে ঋণ করে তাঁরা আলু চাষ করেছিলেন, এবার তাঁরা কী করবেন ভেবে কূল পাচ্ছেন না।
অন্যদিকে তাঁদের দাবি, প্রতিবছরই হাতি এলাকায় কৃষিকাজের ব্যাপক ক্ষতি করে। কিন্তু পর্যাপ্ত পরিমাণে ক্ষতিপূরণ দেয় না বনদপ্তর। এমনকি এলাকায় হাতি আসলেও আগাম জানাচ্ছে না বনদপ্তর। ফলে প্রতিবছরই হাতির হানায় অতিষ্ঠ গোটশোল এলাকার কৃষকরা। কৃষকরা দাবি করেন, সরকারি সাহায্য ছাড়া তাঁদের আর কোনও উপায় নেই। সরকারি সাহায্য না পেলে হয়তো তাঁদের আত্মহত্যা করতে হবে। এমনকি স্থানীয় রেঞ্জ ও বিট অফিসারদের ওপর ক্ষোভ উগরে দেন এলাকার কৃষকরা।
বিষ্ণুপুর পাঞ্চেত বনবিভাগের ডিএফও অঞ্জন গুহর দাবি, হাতির দলটিতে কিছু বাচ্চা হাতি রয়েছে, যে কারণেই তাদের কাছ থেকে কোনও মুভমেন্ট করা যাচ্ছে না, তবে যে সমস্ত ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকরা রয়েছেন, তাঁদের উদ্দেশে তিনি জানান, স্থানীয় রেঞ্জ অফিসে যোগাযোগ করলে অবশ্যই ক্ষতিপূরণ পাবেন বন দপ্তরের নিয়ম অনুযায়ী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *