বোলপুর : নির্যাতিতাকে নিয়ে লুকোচুরি খেলছে পুলিশ , সিবিআই তদন্ত হোক দাবি বিজেপি মহিলা মোর্চার

বোলপুর : গনধর্ষণ না ধর্ষণ প্রশ্নে উত্তাল বোলপুর l নির্যাতিতাকে নিয়ে লুকোচুরি খেলছে পুলিশ , সিবিআই তদন্ত হোক দাবি বিজেপি মহিলা মোর্চার। বোলপুরের আদিত্যপুর এর আদিবাসী নাবালিকা কে ধর্ষণ করা হয়েছে, কিন্তু সেই নাবালিকা গণধর্ষণের শিকার কিনা সেই প্রশ্নে বাকবিতন্ডা হলো রবিবার l ঘটনার 72 ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও দুষ্কৃতিকারীদের এখনো পর্যন্ত গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ ,তাই সেই পুলিশের উপর ভরসা নেই জানিয়ে সিবিআই তদন্তের দাবি জানালেন বিজেপি মহিলা মোর্চার প্রতিনিধিদলের সভাপতি তনুজা চক্রবর্তী l রবিবার ছয় সদস্যের মহিলা মোর্চার প্রতিনিধি দল নির্যাতিতার বাড়িতে আসেন এবং তাদের পরিবারের সাথে কথা বলেন l পাশাপাশি রাজ্য মহিলা মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারপার্সন জেলা শাসক ও জেলা পুলিশ সুপারের সঙ্গে সার্কিট হাউসে বৈঠক করেন সেখানেই আনা হয় নির্যাতিতা ও তার পরিবারকে l

রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপারসন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক শেষে সার্কিট হাউস থেকে নির্যাতিতাকে নিয়ে যায় শান্তিনিকেতন থানার পুলিশ। সেই সময় পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায় বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য নেতৃত্ব৷ এখনও পর্যন্ত কেউ গ্রেপ্তার হয়নি কেন, কেন নির্যাতিতাকে আড়াল করছে পুলিশ এই অভিযোগ তুলে সার্কিট হাউসেই বিক্ষোভ দেখায় বিজেপির মহিলা মোর্চার নেতৃত্ব৷

যদিও জেলা পুলিশ সুপার নগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠি বলেন, প্রেমিক ও তার বন্ধুর বয়ান অনুযায়ী স্কেচ করে দোষীদের চিহ্নিত করেছি৷ দ্রুত গ্রেপ্তার করা হবে৷” তবে গণধর্ষণ নাকি দোষী ব্যক্তি একজন সে নিয়ে কোন কথা বলতে চাননি পুলিশ সুপার l

জেলাশাসক বিধান রায় বলেন দোষীদের চিহ্নিতকরণের কাজ চলছে এবং নির্যাতিতার প্রতি জেলা প্রশাসন সজাগ আছেন তার সমস্ত রকমের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে l

আদিবাসী নাবালিকাকে গণধর্ষণের ঘটনায় জেলা শাসক বিধান রায় ও জেলা পুলিশ সুপার নগেন্দ্র নাথ ত্রিপাঠী সহ জেলা শিশু সুরক্ষা আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করলেন রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপারসন লীনা গঙ্গোপাধ্যায়৷ বোলপুর সার্কিট হাউসে নির্যাতিতা নাবালিকা ও তার মায়ের সঙ্গে কথা বলেন তারা৷ ধর্ষণ হয়েছে, তবে গণধর্ষণ নয়। এমনই ইঙ্গিত দিলেন রাজ্য মহিলা কমিশনের চেয়ারপারসন।তিনি বলেন, “আমরা নির্যাতিতার সঙ্গে কথা বলেছি৷ ও সবটাই জানিয়েছে৷ মেডিক্যাল রিপোর্ট আমরা চিকিৎসককে দিয়ে ভেরিফাই করাব৷ তবে যা শুনলাম নদীর তীরে যারা নিয়ে গিয়েছিল, তাদের মধ্যে ৩ জন নাবালক। একজন বড়, সেই অসভ্যতা করেছে।”

প্রসঙ্গত, শান্তিনিকেতন থানার আদিত্যপুর এলাকা নাবালিকাকে প্রেমিকের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠে৷ এখনও পর্যন্ত ঘটনায় কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ l সেই প্রসঙ্গ টেনে রাজ্য পুলিশের ওপর ভরসা নেই জানিয়ে সিবিআই তদন্ত দাবি জানিয়েছে বিজেপি মহিলা প্রতিনিধিদল l রবিবার নির্যাতিতার বাড়িতে ভারতী ঘোষের নেতৃত্বে বিজেপি বিধায়ক দের এক প্রতিনিধি দল যানl অভিযোগ তা আগে জানা সত্ত্বেও পুলিশ নির্যাতিতা ও তার মাকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যায় ফলে নির্যাতিতা বা তার পরিবারের সাথে কথা বলতে পারেননি ভারতী ঘোষ সেই খবর শোনা মাত্রই প্রতিবাদ জানান বিজেপি মহিলা মোর্চা সদস্যরাও যদিও সূত্রের খবর রাজ্য মহিলা মানবাধিকার কমিশনের সঙ্গে দেখা করতে বোলপুর সার্কিট হাউস এ নির্যাতিত ও তার মাকে আনা হয় কিন্তু বিজেপি মহিলা মোর্চা সদস্যরা তাদের সাথে কথা বলতে গেলে পুলিশ তাদের গাড়ি করে অন্যত্র সরিয়ে নেয় সেই সময় বিক্ষোভ দেখান বিজেপি মহিলা মোর্চা সদস্যরা l তারা বলেন 48 ঘণ্টা থেকে বাহাত্তর ঘন্টা হতে চলল অপরাধীরা এখনো গ্রেপ্তার হয়নি নির্যাতিতাকে এবং তার পরিবারকে এখনো পর্যন্ত কথা বলতে দেওয়া হচ্ছে না তাদের বাড়ির সামনে পুলিশি প্রহরা রাখা হয়েছে রাজ্যে মহিলা মানবাধিকার কমিশন ইতিবাচক ভূমিকা না নিলে তারা কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশনের দ্বারস্থ হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন l

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 + 11 =