লোকসভায় হেরেও হাল ছাড়েননি, জামুড়িয়ায় বিজেপির পার্টি অফিস দখল, পুনরুদ্ধার করলেন অগ্নিমিত্রা

আসানসোল ও জামুড়িয়া : নির্বাচনী ফলাফল ঘোষণার পর হিংসার অভিযোগ উঠল জামুড়িয়ায়। জামুড়িয়ার ইসিএলের সাত গ্রাম নাগেশ্বর কোলিয়ারির বিজেপির পার্টি অফিস দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। জামুড়িয়ার সাত গ্রাম এরিয়ার নাগেশ্বর কোলিয়ারি জিএম বাংলোর কাছে পার্টি অফিসটি দখল করে নেয় তৃণমূল বলে অভিযোগ। ঘটনার পর বিজেপি নেতৃত্ব পুলিশের সহযোগিতা চাইলেও সহযোগিতা মেলেনি বলে অভিযোগ। এরপর অগ্নিমিত্রা পল খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছন। এবং পার্টি অফিস পুনরুদ্ধার করেন। ফের নতুন করে পার্টি অফিস পরিষ্কার করে দলীয় ঝান্ডা উত্তোলন করেন তিনি।

এই ঘটনা যখন ঘটে, তখন শুভেন্দু অধিকারী ভিডিও কলের মাধ্যমে গোটা ব্যাপারটি খবর নেন। অগ্নিমিত্রা পল জানান, তিনি জামুড়িয়া থানায় লিখিত অভিযোগ জানাবেন। রবিবার, আসানসোল লোকসভার জামুড়িয়ার সাতগ্রামে ভোট-পরবর্তী হিংসার অভিযোগে উত্তপ্ত হলো নাগেশ্বর কলিয়ারি এলাকা। এদিন নাগেশ্বর কোলিয়ারির মধ্যে থাকা পরিত্যক্ত জিএম বাংলোর মধ্যে গড়ে ওঠা বিজেপির দলীয় কার্যালয়টি-কে সকাল থেকেই তৃণমূলের বেশকিছু কর্মী-সমর্থক নিজেদের দলীয় পতাকা ব্যানার পোস্টার দিয়ে বিজেপির ব্যানার-পোস্টার সরিয়ে দিতে শুরু করে। এরপরই সৃষ্টি হয় উত্তেজনাময় পরিস্থিতির। ঘটনার খবর পাওয়ার পরপরই জামুড়িয়া থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছে উত্তেজনাময় পরিস্থিতি সামাল দেয়। এই ঘটনার খবর পেয়ে অগ্নিমিত্রা পল ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ প্রশাসনের আধিকারিকদের-কে প্রশ্ন করেন। কেন এ ধরনের ঘটনা বারবার তৃণমূল কর্মীরা ঘটাচ্ছেন ? পুলিশ-প্রশাসন কেন এ সমস্ত কিছুকে রুখে দেওয়ার ব্যবস্থা করলেন না ? জবাবদিহি চান অগ্নিমিত্রা।

এদিন পুলিশ আধিকারিকরা বিধায়িকা-কে বারবার বোঝানোর চেষ্টা করেন যে, তারা উত্তেজনাময় পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য বিশেষভাবে তৎপর হয়েছেন। উল্লেখ্য, গত কয়েক বছর আগেই ইসিএলের সাতগ্রাম এরিয়ার নাগেশ্বর কোলিয়ারি মধ্যে একটি পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে থাকা জিএম গেস্টহাউসে বিজেপির দলীয় কার্যালয় হিসেবে গড়ে তোলেন এলাকার বেশ কিছু বিজেপি নেতৃত্ব। দীর্ঘদিন ধরে পরিতক্ত পড়ে থাকা সেই গেস্ট হাউসটিকে বর্তমানে দলীয় কার্যালয় হিসেবে বিজেপি ব্যবহার করার পর, রবিবার সকাল নাগাদ হঠাৎ সেই দলীয় কার্যালয়ে তৃণমূলের ব্যানার পোস্টার লাগিয়ে এবং বিজেপির ব্যানার-পোস্টার ফেলে সরিয়ে দেয় বলে অভিযোগ তুলে এদিন উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকা। বিজেপি বিধায়িকা অগ্নিমিত্রা পল-এর দাবি, রাজ্যজুড়ে ভোট-পরবর্তী হিংসা জারি রয়েছে এখানেও নির্বাচনে ব্যাপক ভোটে জয়লাভ করার পরও তৃণমূলের নেতাকর্মীরা ভোট পরবর্তী হিংসা জারি রেখেছে, যা কখনই কাম্য নয়। তারা কোন রাজনৈতিক দলের পার্টি অফিস কখনও দখল করার কথা বলেন না। কোনো রাজনৈতিক দলের পাটি অফিস তারা দখল করেন নি, তাই এধরনের ঘটনা যাতে আগামীতে না হয় তার জন্য তিনি তৃণমূল নেতৃত্ব-কে বিষয়গুলি দেখার জন্য নিজের বক্তব্যে আবেদন জানান। অপরদিকে ওই ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর সুব্রত অধিকারী ওরফে রানা জানান, এটি একটি ইসিএলের আবাসন। এইখানে বিভিন্ন সমাজ বিরোধী কার্যকলাপ হয়। বহিরাগতরা এই জায়গাটি-কে মদ, জুয়ার ঠেকে পরিণত করেছে। বহুবার ইসিএলের দ্বারস্থ হয়েছেন তারা। কোন লাভ হয়নি। বিজেপির আনা অভিযোগ ভিত্তিহীন। ভোটে বিপুল ভাবে হেরে গিয়ে মানুষের সহানুভূতি পাওয়ার জন্য তৃণমূলের উপর মিথ্যা অভিযোগ করছেন বিজেপি নেত্রী অগ্নিমিত্রা পল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five × 3 =