কিছুতেই কমছে না ওজন? সাঁতার কাটুন

সুন্দর থাকতে সকলেই চান। কিন্তু বয়সের সঙ্গে সঙ্গে মেটাবলিজম রেট কমে যাওয়ায়, ঠিকমতো শারীরিক পরিশ্রম না হওয়ায় কখনও খাদ্যাভাস ঠিক না থাকায় ওজন বাড়তে থাকে।অনেকে ডায়েট করে, হেঁটেও ওজন কমাতে পারেন না।

ওজন কমানো হোক বা শরীর সুন্দ রাখা, ফিগার সুন্দর রাখা সাঁতারেই কিন্তু হতে পারে সব সমস্যার সমাধানে। গরমকালে জল নেমে মন ভাল হয় না, এমন লোকজন খুব কমই আছে। অনেকের আবার জলে ভয়। সে যাই হোক না কেন, সাঁতার শুরু করলে সব সমস্যাই মিটবে।

বাড়ির ক্ষুদেকে যখন সাঁতারে ভর্তি করবেন বাবা বা মা, তিনিও চেষ্টা করুন সুইমিং ক্লাবে গিয়ে ভর্তি হতে। বয়স হয়েছে, লোকে কি বলবে! এই বয়সে হাত-পায়ে ব্যথা হলে কীহবে এই সব ভুল ভাবনা ছেড়ে জলে একবার ঝাঁপিয়ে পড়লেই কেল্লা ফতে।

উপকার-

১. সাঁতারে শরীরের একাধিক পেশী একসঙ্গে কাজ করে। সাঁতারে সারা শরীরের ব্যায়াম হয়। ক্যালোরিও খরচ হয় দ্রুত। ফলে ওজন কমাতে সাঁতার আদর্শ। তাছাড়া নিয়মিত অভ্যেসে নানা ধরনের ব্যথা, যন্ত্রণা দূর করতে পারে সাঁতার।

২. ফুসফুস ও হৃদ্‌যন্ত্রেরও সচল রাখতে সাঁতার খুব কার্যকর। শ্বাস-প্রশ্বাসের ব্যায়াম হয় এতে।

৩. শরীরের বিভিন্ন অঞ্চলে রক্ত চলাচল বাড়ায়। তার ফলে অক্সিজেন সরবরাহ বাড়ে। সঙ্গে বাড়ে কর্মক্ষমতা।

৫. মানসিক অবসাদ বা উদ্বেগজনিত সমস্যা থাকলেও সাহায্য করতে পারে নিয়মিত সাঁতার কাটার অভ্যাস। কারণ সাঁতার কাটলে শরীরে এন্ডরফিন নামক একটি হরমোন তৈরি করে। এই হরমোন মানসিক চাপ কমাতে সাহায্য করে। মন ভাল করে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − 3 =