ফের পানাগড়ে সার কারখানা, জমি পরিদর্শনে পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন, কাঁকসা: ফের একটি সার কারখানা গড়ে উঠতে চলেছে পানাগড় শিল্পতালুকে। সোমবার বিকেলে পানাগড় শীলতালুকে জমি পরিদর্শনে আসেন রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রাম উন্নয়ন মন্ত্রী তথা দুর্গাপুর পূর্বের বিধায়ক প্রদীপ মজুমদার। এছাড়াও সঙ্গে ছিলেন সংস্থার আধিকারিকরা।
জানা গিয়েছে, একটি বেসরকারি সার কারখানা কর্তৃপক্ষ বাংলায় লগ্নির কথা ঘোষণা করার পরেই রাজ্য সরকার পানাগড় শিল্পতালুকের কথা জানান। সেইমতো রাজ্যের পঞ্চয়েত মন্ত্রী ওই সংস্থার আধিকারিকদের নিয়ে পানাগড় শিল্পতালুকের বেশ কয়েকটি জমি দেখিয়েছেন। পানাগড় শিল্পতালুকে ইতিমধ্যে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ পরিষেবা, জল পর্যাপ্ত পরিমাণে পৌঁছে গিয়েছে। ফলে কারখানা গড়তে কোনও সংস্থার সমস্যা হবে না বলেই পানাগড় শিল্পতালুকের কথা শিল্পপতিদের জানানো হয়েছে। জমি পছন্দ হলেই দ্রুত সার কারখানা নির্মাণের কাজ শুরু হয়ে যাবে। আর দ্রুত সার কারখানা নির্মাণ হলে কর্মসংস্থানের সুযোগ আরও বাড়বে বলে দাবি।
প্রসঙ্গত, গত বাম আমলে বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের কথা মাথায় রেখে কাঁকসা,সোঁয়াই, পন্ডলি, কোটা এলাকায় প্রায় ১৩০০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছিল। তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর এক এক করে বেশ কয়েকটি কারখানা নির্মাণ হয়েছে পানাগড় শিল্পতালুকে। পানাগড় শিল্পতালুকের কাছেই রয়েছে রেল ও সড়ক পথে যোগাযোগের ব্যবস্থা। যার ফলে উৎপাদিত পণ্য দ্রুত গন্তব্যে পৌঁছনো সম্ভব হবে এবং কাঁচামাল আমদানির ক্ষেত্রেও সুবিধা রয়েছে।
যদিও কোটা অঞ্চলে ইতিমধ্যে সাড়ে ৬০০ একর জমির মধ্যে এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম সার কারখানা গড়ে সেখানে উৎপাদনের কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ফের একটি সার কারখানা গড়ে ওঠার খবরে আশায় বুক বেঁধেছেন কাঁকসার বেকার যুবকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *