রাস্তা ও ব্রিজের দাবিতে ভোট বয়কটের ডাক

নিজস্ব প্রতিবেদন, বর্ধমান: আবারও ভোট বয়কটের পোস্টার বর্ধমানের মেমারিতে। ব্রিজ ও রাস্তার দাবিতে এবার ভোট বয়কটের সিদ্ধান্তেই অনড় দিলালপুর গ্রামের মানুষ।
মেমারি এক নম্বর ব্লকের বাগিলা গ্রাম পঞ্চায়েতের দিলালপুর গ্রামের বিভিন্ন জায়গায় বুধবার দেখা গেল রাস্তা ও ব্রিজের দাবিতে ভোট বয়কটের পোস্টার। বর্তমানে বাগিলা গ্রাম পঞ্চায়েতের দিলালপুর গ্রাম ও মেমারি পুরসভার যোগাযোগের মাধ্যম ডিভিসি খালের ওপর একটি সংকীর্ণ কাঠের ব্রিজ এবং বর্তমানে কাঠের সেতুটির যা অবস্থা তাতে একে ঝুলন্ত মরণ ফাঁদ বলে দাবি করছেন স্থানীয়রা। সেতুটির নীচে যে কাঠের খ¥ুটি ছিল, সেগুলির বেশিরভাগ অংশই ভেঙে গিয়েছে। ভেঙে গিয়েছে ব্রিজের দু’ধারের কাঠের রেলিংও। এর আগেও এই কাঠের সেতুটির জায়গায় কংক্রিটের ব্রিজ নির্মাণের দাবি ওঠে। সেতুটির জরাজীর্ণ অবস্থার কারণে যে কোনও সময় ভেঙে পড়ার আশঙ্কা, তাই প্রশাসন থেকে সেই সময় এই কাঠের সেতুর দু’ধারে বাঁশ বেঁধে চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয় এবং সাধারণ মানুষের চলাচলের যাতে অসুবিধা না হয় সেজন্য একটি বোটের ব্যবস্থাও করা হয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। কিন্তু ডিভিসি তে জলের অভাবে বন্ধ অবস্থায় পড়ে রয়েছে বোটটি।
ভগ্নপ্রায় কাঠের ব্রিজ তার ওপর তার আগে বেশ কিছুটা রাস্তার বেহাল দশার কারণে ßুñল কলেজের ছাত্রছাত্রী এবং অসুস্থ রোগী ও গর্ভবতী মহিলাদের খুবই সমস্যার মধ্যে পড়তে হয় বলে দাবি। এলাকাবাসীর দাবি, প্রতি নির্বাচনের সময় জনপ্রতিনিধিরা দুয়ারে দুয়ারে আসেন ভোট ভিক্ষা করতে। মেলে প্রতিশ্রুতি, কিন্তু এখনও পর্যন্ত হয়নি কোনও কাজের কাজ। বাগিলা গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন গ্রামে বিভিন্ন উন্নয়নের পাশাপাশি নতুন রাস্তা ও রাস্তা সংস্কারের কাজ হলেও, কেন দিলালপুর গ্রামের সমস্যার সুরাহা হচ্ছে না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন গ্রামবাসীরা।
যদি কাঠের সেতুটি এমত অবস্থায় সম্পূর্ণ ভাবে ভেঙে যায় তা হলে প্রায় পাঁচ থেকে ছ’ কিলোমিটার ঘুরে পৌঁছনো যাবে শহর মেমারিতে এবং এই এলাকাতেই একটি পঞ্চানন মন্দিরও আছে, সেখানেও দূর দূরান্ত থেকে বহু ভক্তের সমাগম ঘটে এবং মেমারি হয়ে এই পঞ্চানন মন্দিরে পৌঁছতে গেলেও একমাত্র ভরসা এই জরাজীর্ণ কাঠের সেতু। তাই আর প্রতিশ্রুতি নয়, অবিলম্বে এই কাঠের সেতুটির পরিবর্তে কংক্রিটের সেতুর দাবি জানাচ্ছেন এলাকাবাসীরা। তাই ব্রিজ ও রাস্তার দাবিতে এবার ভোট বয়কটের সিদ্ধান্তেই অনড় দিলালপুর গ্রামের সাধারণ মানুষ থেকে পড়ুয়ারা।
এর আগেও এই ভগ্নপ্রায় কাঠের ব্রিজ পরিদর্শন করেছিলেন মেমারি বিধানসভার বিধায়ক মধুসূদন ভট্টাচার্য এবং বর্তমানে নতুন কংক্রিটের সেতু তৈরি করার ব্যাপারে এখনও অনুমোদন পাওয়া যায়নি বলে তিনি টেলিফোনে জানান এবং তিনি আরও জানান যে, তিনি এই ভোট বয়কটের বিষয়টি জানতেন না, আগামী দিনে গ্রামবাসীদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথাও বলবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *