মা ও দাদাকে খুনের অভিযোগে ধৃত ভাই, বাধা দেওয়ায় আহত ৩

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাঁকুড়া: বৃদ্ধা মা ও নিজের দাদাকে শাবল দিয়ে পিটিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠল ছোট ভাইয়ের বিরুদ্ধে। সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার খাতড়া থানার জলডোবরা গ্রামে। বাধা দিতে গিয়ে শাবলের আঘাতে আহত হন ভাইঝি, বউদি ও দিদি। আহতদের খাতড়া মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে বাঁকুড়ার খাতড়া থানার জলডোবরা গ্রামে গোপী বাউরির বাড়িতে প্রবল চিৎকার চেঁচামেচি শুনতে পান প্রতিবেশীরা। প্রতিবেশীদের দাবি, তাঁরা তাঁদের বাড়িতে গিয়ে দেখেন বছর ষাটের লক্ষ্মী বাউরি ও তাঁর বড় ছেলে বছর চল্লিশের দেবু বাউরি মেঝেতে রক্তাক্ত ও মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন। অন্যদিকে গুরুতর আহত অবস্থায় বাড়িতে পড়ে রয়েছেন দেবু বাডরির স্ত্রী মঙ্গলা বাউরি, তাঁর মেয়ে শিখা বাউরি ও দিদি খেপি বাউরি।
এরপর প্রতিবেশীরা খাতড়া থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে দু’টি মৃতদেহ উদ্ধারের পাশাপাশি আহতদের খাতড়া মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরিবারের অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ বাড়ি থেকেই মৃতা লক্ষ্মী বাউরির ছোট ছেলে গোপী বাউরিকে গ্রেপ্তার করে। প্রাথমিক ভাবে তদন্তকারীদের ধারণা, পারিবারিক বিবাদের জেরেই গোপী বাউরি নৃশংস ভাবে নিজের মা ও দাদাকে শাবল দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছেন। অভিযুক্ত গোপী বাউরির কঠোরতম শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছেন এলাকার মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

4 × 1 =