বউবাজারে একের পর এক বাড়িতে ফাটল, তবে কি ফিরবে পুরনো স্মৃতি! আতঙ্কে বাসিন্দারা

কলকাতা: আচমকা বউবাজারে কয়েকটি বাড়িতে ফাটল দেখা দেওয়ায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে। বুধবার রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ফাটলও বাড়তে থাকে। ঘটনাস্থলে যান স্থানীয় তৃণমূল কাউন্সিলার বিশ্বরূপ দে। পুলিশ প্রশাসন স্থানীয় মানুষকে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসতে বলে।

২০১৯ সালে মেট্রোর কাজের জন্য একইভাবে বউবাজারে কয়েকটি বাড়িতে ফাটল দেখা যায়। তার পুনরাবৃত্তি হওয়ায় ব্যাপক ক্ষোভ দেখা গিয়েছে বউবাজারে। জানা গিয়েছে, কোনও কোনও বাড়িতে মেঝে থেকে সিলিং পর্যন্ত ফাটল ধরে গেছে। তা বেড়েও চলেছে ক্রমশ। এই বুঝি হুড়মুড়িয়ে ধসে পড়ে আস্ত বাড়িটা! ভয়ে, আতঙ্কে মাঝরাত থেকেই ঘরছাড়া বউবাজারের দুর্গাপিতুরি লেনের বাসিন্দারা। শুধু বাড়ি নয়, রাস্তাতেও ফাটল দেখা গেছে। ব্যাগ গুছিয়ে একের পর এক বাড়ি ছাড়তে দেখা গেছে বাসিন্দাদের। মেট্রোর কর্তারাও এলাকায় এসেছিলেন বলে জানা গেছে। তবে কী কারণে ফাটল ধরতে পারে সে ব্যাপারে তাঁদের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

২০১৯ সালের অগস্টে মেট্রোর কাজ চলাকালীন এই এলাকার বাড়িগুলিতে ফাটল ধরেছিল।মাঝে শুধু আড়াই বছরের ফারাক। ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের সংলগ্ন দুর্গাপিতুরি লেনে একাধিক বাড়িতে আবারও ফাটল ধরেছে। অন্তত ১০টি বাড়িতে ফাটল দেখা গেছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। দুশ্চিন্তার বিষয় হল, ২০১৯ সালের অগস্টে যে বাড়িগুলিতে ফাটল ধরেছিল, এ বারও সেই বাড়িগুলিতেই ফাটল ধরেছে বলে অভিযোগ।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মেট্রোর কাজ চলাকালীন এ দিন কমপক্ষে ১০টি বাড়িতে ফাটল দেখা দেয়। শুধু বাড়িই নয়, রাস্তাতেও ফাটল ধরেছে। ফলে আতঙ্কে বাড়ি ছাড়তে শুরু করেছেন স্থানীয়দের অনেকেই। ২০১৯-এ মেট্রো কাজ চলাকালীন ক্ষতিগ্রস্ত হয় কমপক্ষে ৪০ বাড়ি। পরিস্থিতি এতটাই বিপজ্জনক ছিল যে, বেশ কয়েকটি বাড়ি ভেঙে ফেলতে হয়। ঘরবাড়ি ছেড়ে অস্থায়ী ঠিকানায় চলে হয়েছিল বাসিন্দাদের। আবারও সেই একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হতে চলেছে!

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 + eighteen =