যমজ সন্তানের জন্মের পরই মৃত্যু ছেলের, শোকে কাতর ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো

বিষাদের ছায়া নেমে এল ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর জীবনে। দু’দিন আগেও উচ্ছ্বাসে ভেসে গিয়েছিলেন তিনি। ইপিএলে নরউইচের বিরুদ্ধে দুরন্ত হ‌্যাটট্রিক করে দলকে জিতিয়েছিলেন। কিন্তু কে জানত, তার কয়েক দিনের মধ্যেই রোনাল্ডোর জীবনে নেমে এল বিষাদময় এক মুহূর্ত। সোমবার রাতে সদ্যোজাত পুত্র সন্তানকে হারানোর কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজেই জানালেন রোনাল্ডো।

রোনাল্ডো ও তাঁর বান্ধবী জর্জিনা রডরিগেজের একটি পুত্র এবং একটি কন্যা সন্তান হয়। সেই যমজ সন্তানের মধ্যে পুত্র সন্তান মারা গিয়েছে। পুত্রশোকে কাতর রোনাল্ডো সোশ‌্যাল মিডিয়ার লিখলেন, ‘গভীর দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, আমাদের পুত্র প্রয়াত হয়েছে। যে কোনও বাবা-মায়ের কাছে সন্তানের প্রয়াণ সবসময়ই বেদনাদায়ক ঘটনা। কন্যা সন্তান জীবিত থাকাটাই এই কঠিন সময়ে আমাদের শক্তি যোগাচ্ছে। আমার পুত্র, তুমি আমাদের দেবদূত। আমরা তোমায় সবসময় ভালবাসব।’ রোনাল্ডোর কন্যা জীবিত আছেন। আপাতত তাকে আকড়ে ধরেই দুঃখ ভুলতে চাইছেন ক্রিশ্চিয়ানো।

তিনি আরও লেখেন, “যেভাবে চিকিৎসক এবং নার্সরা আমাদের পাশে ছিলেন, তাঁদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আমরা এই মুহূর্তে বিধ্বস্ত। এই কঠিন সময়ে আমাদের একা থাকতে দেওয়ার আবেদন করছি। আশা করছি সকলে আমাদের গোপনীয়তাকে সম্মান করবেন।’ রোনাল্ডোর এই কঠিন পরিস্থিতিতে তাঁর ক্লাব ম‌্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটড পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছে। ইউনাইটেডের তরফ থেকে রোনাল্ডোর উদ্দেশে বলা হয়, ‘তোমার কষ্ট, আমাদেরও কষ্ট। আমরা সবাই তোমার পরিবারের পাশে রয়েছি।’ গত অক্টোবরেই রোনাল্ডো এবং জর্জিনা ঘোষণা করেছিলেন, তাঁদের যমজ সন্তান আসতে চলেছে। মেডিক্যাল রিপোর্ট-সহ একটি ছবিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছিলেন তাঁরা। সেই জমজের একজনের মৃত্যুতে পর্তুগিজ মহাতারকা রীতিমতো বিধ্বস্ত। প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে প্রথম বার বাবা হন রোনাল্ডো। তারপর ২০১৭ সালে সারোগেসির মাধ্যমে দুই সন্তানের বাবা হন। তাঁর বর্তমান বান্ধবী জর্জিনা প্রথম মা হন সে বছরেরই নভেম্বরে। এরপর এ বছরই যমজ সন্তান হওয়ার কথা ছিল তাঁদের। সমস্ত চিকিৎসক ও নার্সদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন পর্তুগিজ ফুটবলার। গত ২৮ অক্টোবর রোনাল্ডো এবং তাঁর বান্ধবী জিওর্জিনা রদ্রিগেস ঘোষণা করেছিলেন, তাঁদের যমজ সন্তান হতে চলেছে। এমনকী তাঁর রিপোর্টের ছবিও প্রকাশ করতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে।

প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে প্রথম বার সন্তানের বাবা হন রোনাল্ডো। ছেলের নাম দেন ক্রিশ্চিয়ানো জুনিয়র। কোনও দিনই তার মাতৃপরিচয় সামনে আনেননি রোনাল্ডো। এরপর ২০১৭ সালে সারোগেসির মাধ্যমে দুই সন্তানে এভা ও মাতেয়োর বাবা হন রোনাল্ডো। সেই বছরই নভেম্বরে জর্জিনা এবং তাঁর প্রথম সন্তান আলানার জন্ম হয়। কাতার বিশ্বকাপই হতে চলেছে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর শেষ বিশ্বকাপ। ভক্ত-অনুরাগীরা এখন থেকেই অধীর আগ্রহে। তাঁর আগেই এই দুঃসংবাদে বিধ্বস্ত সকলেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

twelve + six =