মধ্যপ্রদেশে বাজি কারখানায় বিস্ফোরণে মৃত কমপক্ষে ১১, ঝলসে গিয়েছেন ৬০ জন

মধ্যপ্রদেশে বাজি কারখানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ। মঙ্গলবার সকালে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে মধ্যপ্রদেশের হরদা জেলার বৈরাগঢ় গ্রাম। বিস্ফোরণের জেরে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কমপক্ষে ১১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে প্রশাসন। বিস্ফোরণে আহত হয়েছেন কমপক্ষে ৬০ জন। বিস্ফোরণের পর পরই কারখানার আশপাশের ৬০টি বাড়িতেও আগুন ধরে যায়। স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে খবর, আহতদের মধ্যে মহিলা এবং শিশুও রয়েছে। জানা গিয়েছে, ১০-১৫টি পর পর জোরালো বিস্ফোরণ হয়। সেই বিস্ফোরণের আওয়াজ কয়েক কিলোমিটার দূর থেকেও শোনা গিয়েছে। আকাশে আগুনের হলকা এবং ধোঁয়া দেখা যায় বহু দূর থেকে।বিস্ফোরণের খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছন জেলা এবং পুলিশ-প্রশাসনের শীর্ষ আধিকারিকেরা।

ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে পৌঁছে উদ্ধারকাজ শুরু করে। রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীও ঘটনাস্থলে যায়। একশোরও বেশি অ্যাম্বুল্যান্স আনা হয়। দমকলের বহু ইঞ্জিন আগুন নেভানোর কাজ করে। স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে খবর, বিস্ফোরণ যখন ঘটে সেই সময় বহু শ্রমিক কারখানার ভিতরেই ছিলেন। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, বিস্ফোরণের সময় কারখানার ভিতরে ১০০ জন শ্রমিক ছিলেন। হরদার জেলাশাসক ঋষি গর্গ এক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, আহতদের উদ্ধার করে হোসাঙ্গাবাদ এবং ভোপালের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাঁদের মধ্যে কয়েক জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন জেলাশাসক। বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই ছিল যে, আশপাশের বেশ কয়েকটি বাড়ি ভেঙে পড়েছে বলে দাবি স্থানীয়দের।

এই ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মোহন যাদব। তিনি আহতদের দ্রুত চিকিৎসা করানোর নির্দেশ দিয়েছেন। ভোপান এবং ইন্দোরের মেডিক্যাল কলেজ এবং ভোপাল এমসকে আহতদের টিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করতে বলেছেন তিনি। পরিস্থিতির উপর নজর রাখতে মন্ত্রী উদয় প্রতাপ এবং প্রশাসনের শীর্ষকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *