খানাকুলে প্রানঘাতী হামলার অভিযোগে গ্রেপ্তার তৃণমূল প্রধান, ৬ দিনের জেল হেপাজতের নির্দেশ

আরামবাগ: লোকসভা ভোটের মুখে তৃণমূলের পঞ্চায়েত প্রধান গ্রেপ্তার। আদালতে তোলা হলে মহামান্য বিচারক তাকে ছয় দিনের জেল হেপাজতের নির্দেশ দেন। চরম অস্বস্তিতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। ধৃত অঞ্চল প্রধানের নাম দেবাশিস সিং। ঘটনাটি ঘটেছে আরামবাগ মহকুমার খানাকুল থানার অন্তরগত অরুন্ডা অঞ্চলের লাউসরে গ্রামে। বাবার নাম কানাই সিং। প্রানঘাতী হামলার অভিযোগে গ্রেপ্তার হন তৃণমূল অঞ্চল প্রধান বলে জানা যাচ্ছে। স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানা গেছে, লাউসরে গ্রামে একটি বাড়ি তৈরি করাকে কেন্দ্র করে বচসা থেকে মারপিটের ঘটনা ঘটে। সম্পতিগত বিবাদের জেরে এই ঘটনা ঘটে। অরুন্ডা অঞ্চলের প্রধান দেবাশিস সিং একটি বাড়ি নির্মাণ করছিলেন। সেই বাড়ি অবৈধ ভাবে হচ্ছে বলে বাঁধা দেন তারই সম্পর্কে কাকা বিনোদন বিহারী সিং। এই বাড়ি নির্মাণ বন্ধ করার জন্য থানায় ও কোর্টেও আবেদন করেন। অভিযোগ প্রশাসনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে অরুন্ডা অঞ্চলের তৃণমূল প্রধান পেশি শক্তি প্রয়োগ করে দলবল নিয়ে এসে বাড়ি তৈরি শুরু করেন। ঘটনার দিন ছিল শনিবার।

এদিন বাড়ি তৈরি শুরু হলে বিনোদ বিহারী সিং থানায় জানালে পুলিশ গিয়ে বাড়ি তৈরি বন্ধ করে দেয়। অভিযোগ বাড়ি তৈরি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দেবাশিস সিং দলবল নিয়ে এসে ওই দিন সন্ধ্যার সময় বিনোদ বিহারীর উপর হামলা চালায়। ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপ মারে তাকে। রক্তাক্ত অবস্থায় ছটফট করতে থাকে বিনোদ বিহারীবাবু। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে খানাকুল গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তারপর অবস্থার অবনতি হলে আরামবাগের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এই বিষয়ে গুরুতর জখম বিনোদ বিহারীর বৌমা শুভ্রা সিং বলেন, শ্বশুরমশাই বিনোদ বিহারীর পৈতৃক সম্পত্তির উপর অধিকার রয়েছে। কিন্তু অন্যান্য ভাইয়েরা তাকে বঞ্চিত করে বাড়ি নির্মাণ করছিল। শ্বশুর মশাই তাই বাড়ি নির্মাণ বাঁধা দেন। থানা ও কোর্টে আবেদন করা হয়। ভোর থেকে বাড়ি তৈরি শুরু হয়। সকাল দশটা নাগাদ পুলিশ বাড়ি তৈরি বন্ধ করে দেয়। তারপর সেই রাগে পাঁচিল টপকে বাড়িতে ঢুকে প্রধান দেবাশিস সিং দলবল নিয়ে মারধর করে। ধাক্কা দেওয়ায় ধারালো অস্ত্রের কোপ পড়ে ঘাড়ে। বিশেষ সূত্রে জানা যাচ্ছে বিজেপি নেতা দিবেন্দু সিংয়ের বাবা হলেন বিনোদ বিহারী সিং এবং শুভ্রা সিং নাকি ওই এলাকার বিজেপি মহিলা মোর্চার নেত্রী। এখান থেকেই পারিবারিক অশান্তিতে রাজনৈতিক রং লাগে। এই বিষয়ে দিবেন্দু সিং বলেন, অরুন্ডার প্রধান জোর করে ভিটেতে বাড়ি করছিল। নিষেধ করা হয়। এদিন সন্ধ্যা বেলায় বাবার উপর ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় দেবাশিস সিং। গুরুতর জখম বিনোদবাবু বলেন দল বেঁধে এসে হামলা করে। পুরশুড়ার বিধায়ক তথা বিজেপি নেতা বিমান ঘোষ বলেন, এটা তৃণমূল কংগ্রেসের কালচার। গ্রেপ্তার হয়েছে প্রধান। উপযুক্ত শাস্তি হোক।

যদিও ধৃত তৃণমূল অঞ্চল প্রধান বলেন, ফাঁসানো হয়েছে। ওনার ছেলে বিজেপি করে। তাই রাজনৈতিক ভাবে ফাঁসানো হয়। এই বিষয়ে আরামবাগ সাংগঠনিক জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারম্যান স্বপন নন্দী বলেন, এটা প্রশাসনের ব্যাপার। তদন্ত করে যা হবে সেটাই মেনে নিতে হবে। সবমিলিয়ে তৃণমূলের অঞ্চল প্রধান ভোটের মুখে গ্রেপ্তার হওয়ায় শোরগোল রাজনৈতিক মহলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *