‘টপ প্রায়োরিটি’ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীরা, হাতির মোকাবিলায় যুদ্ধকালীন তৎপরতা বন বিভাগ, পুলিশের

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাঁকুড়া: মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রথম দিনই বাঁকুড়া উত্তর বন বিভাগের তরফ থেকে জানানো হয় যে, বড়জোড়া-বেলিয়াতোড় এবং পাঞ্চেত বন বিভাগ মিলিয়ে মোট ৪৫ টি হাতি রয়েছে। বাঁকুড়ার হাতিপ্রবণ জঙ্গল সংলগ্ন এলাকার গ্রামগুলির ছাত্রছাত্রীরা যাতে নির্ভয়ে পরীক্ষা দিতে পারে, সেই জন্য রাজ্য সরকারের নির্দেশে বাঁকুড়া উত্তর বন বিভাগের তরফে নেওয়া হয় একাধিক পদক্ষেপ।
মুখ্য বনপাল জানান, সকাল সকাল হুলা পার্টির নজরদারির পর উত্তর বন বিভাগের তরফে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া হয়। বন বিভাগের এই কর্মযজ্ঞে যুক্ত আছে বেলিয়াতোয় এবং বড়জোরা পুলিশ। বাঁকুড়া উত্তর বন বিভাগের গাড়ি ছাড়াও ভাড়া করা হয়েছে ৪০টি যানবাহন। প্রতিটি রেঞ্জে কর্মীদের মোতায়েন করা হয়েছে। জেলাজুড়ে ৫০-৬০টি গ্রাম থেকে পরীক্ষার্থীদের নিয়ে মোট ২৩ ট পরীক্ষা কেন্দ্রে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে।
বাঁকুড়া উত্তর বন বিভাগের জেলা বন আধিকারিক উমর ইমাম জানিয়েছেন, ১০টি দপ্তরের গাড়ি পেট্রলিংয়ের জন্য ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও ভোর ছট’া থেকে চলে হুলা পার্টির নজরদারি। এছাড়াও হাতির অবস্থান পরিবর্তন হলে বন বিভাগ এবং পুলিশ যৌথ ভাবে কাজ করছে। কোথায় কতগুলি হাতি রয়েছে, তার জন্য বৃহস্পতিবার একটি ‘ইন্টেন্স স্ক্যানিং’ করা হয়েছিল। এদিন সকাল থেকেই কুয়াশা করে রয়েছে, আবহাওয়া পরিষ্কার হলেই আবারও ‘ইন্টেন্স স্ক্যানিং’ করা হবে।
বাঁকুড়া উত্তর বন বিভাগের জেলা বনাধিকারিক আশ্বাস দিয়ে জানান যে, বাঁকুড়া উত্তর বন বিভাগের হাতিপ্রবণ জঙ্গল সংলগ্ন এলাকার পরীক্ষার্থীদের ভয় পাওয়ার কোনও কারণ নেই। মনোযোগ দিয়ে পরীক্ষা দিক। তাদের সম্পূর্ণ সুরক্ষার দায়িত্ব বন বিভাগ এবং জেলা পুলিশের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *