অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার রুখতে এবার কঠোর রাজ্য 

অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার ও তার দরুণ রোগীর শরীরে হওয়া নানা সমস্যার জেরে রাজ্য সরকার ওই ধরনের ওষুধ বিক্রি নিয়ন্ত্রণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রেসক্রিপশন ছাড়া ওষুধের দোকানে অ্যান্টিবায়োটিক বিক্রি বন্ধ করতে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর কড়া নজর রাখবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

পাশাপাশি, কৃষি, পোলট্রি, মৎস্য পালনেও যথেচ্ছ অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার বন্ধেও কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। সম্প্রতি রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর এই নিয়ে প্রাণী সম্পদ বিকাশ দপ্তর, মৎস্য দপ্তরের সঙ্গে বৈঠক করে। দপ্তরের অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধ বিষয়ক কমিটিও ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিল। বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কৃষিক্ষেত্র, মৎস্য চাষ, পোলট্রি ফার্মে অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার রুখতেও একটি কমিটি গঠন করা হবে। গ্রামাঞ্চলে নজরদারি বাড়ানো হবে। প্রত্যেক মাসে পর্যালোচনা করে এবিষয়ে অগ্রগতি খতিয়ে দেখা হবে। সেখানে সংশ্লিষ্ট দপ্তরগুলি নিজেদের কাজ কর্ম সংক্রান্ত রিপোর্ট পেশ করবে ।

অ্যান্টিবায়োটিকের ব্যবহার বাড়তে থাকা নিয়ে কিছু দিন ধরেই চিকিৎসক মহল নিজেদের উদ্বেগ জানিয়ে আসছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও এবিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে স্বাস্থ্য দপ্তরকে বিষয়টি দেখতে বলেন। বিভিন্ন জায়গায় কিছু রোগীর শরীরে অ্যান্টিবায়োটিক প্রতিরোধী ব্যাক্টিরিয়া বাসা বেঁধেছে। ফলে সংক্রমণ কমাতে উচ্চ মাত্রার বা খুব দামি অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করতে হয়েছে। সম্প্রতি অ্যান্টিবায়োটিকের যথেচ্ছ ব্যবহার নিয়ে সতর্ক করতে সচেতনতা সপ্তাহ পালন করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এবার এনিয়ে কঠোর পদক্ষেপ করল রাজ্য সরকারও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *