নাগাল্যান্ড, মণিপুর ও অসমের আংশিক অংশে আফস্পা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের

উত্তর পূর্বের রাজ্য গুলি থেকে দীর্ঘদিন ধরে আর্মড ফোর্সেস স্পেশ্যাল পাওয়ার অ্যাক্ট (Armed Forces Special Powers Act) বা আফস্পা (AFSPA) প্রত্যাহারের দাবি সামনে এসেছিল। এমনকী সদ্য সমাপ্ত উত্তর পূর্বের মণিপুরে বিধানসভা নির্বাচনের সময়েও অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু ছিল আফস্পা। বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলির তরফেও রাজ্যে ক্ষমতায় এলে আফস্পা তুলে নেওয়ার কথা জানানো হয়েছিল। কিন্তু শেষমেশ মণিপুরের সাধারণ মানুষ বিজেপির ওপরই আস্থা রেখেছিল। গত বছর নাগাল্যান্ডের মন জেলায় সেনাবাহিনীর গুলিতে ১৪ জন নিরীহ গ্রামবাসীর মৃত্যুর পর আফস্পা প্রত্যাহারের দাবি জোরাল হয়েছিল। এবার উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলির দীর্ঘদিনের দাবিকে মান্যতা দেওয়ার পথে এক ধাপ এগোল কেন্দ্রীয় সরকার। নাগাল্যান্ড, অসম মণিপুরের বেশ কয়েকটি অংশ থেকে আফস্পা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্র। এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)

 

দীর্ঘদিন ধরেই উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলিতে আফস্পা প্রত্যাহারের দাবির কথা সামনে উঠে এসেছিল। কারণ নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে ক্ষমতার অপব্যবহারের দাবিতে বারবার সরব হয়েছিল। সাম্প্রতিক নাগাল্যান্ডের মন জেলার ঘটনার পর আফস্পা প্রত্যাহারের দাবি আরও জোরাল হয়ে। এমনকী বিজেপি শাসিত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরাও আফস্পা তুলে নেওয়ার দাবি জানিয়েছিলেন। এখন অমিত শাহ তথা কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্ত উত্তর পূ্র্বের দাবিকেই অনেকটা মান্যতা দিল। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ মনে করছেন, উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলি থেকে আফস্পা প্রত্যাহারের এটাই প্রথম ধাপ। ভবিষ্যতে সম্ভবত ধাপে ধাপে রাজ্যগুলি থেকে আফস্পা সম্পূর্ণভাবে তুলে নেওয়া হবে। কবে কেন্দ্রীয় সরকার এই নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়, সেদিকেই নজর থাকবে সকলের

 

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ টুইটারে জানিয়েছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় সরকার একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অসম, মণিপুর নাগাল্যান্ডে বেশ কয়েকটি উপদ্রুত অংশে আফস্পা কমানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে কেন্দ্রীয় সরকার যে তৎপরতার সঙ্গে উত্তর পূর্বের রাজ্যগুলিতে কাজ করেছে এবং বিভিন্ন উদ্যোগের ফলে সেখানে নিরাপত্তা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। এই পদক্ষেপগুলির কারণে সেখানে এখন শান্তির পরিবেশ রয়েছে, তাই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে উত্তর পূর্ব বঞ্চিত ছিল, তবে সেখানে শান্তি, উন্নতি অভূতপূর্ব উন্নয়নকে বাস্তবায়ণ করার জন্য আমি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

16 − 12 =