সন্দেশখালির ঘটনায় সিবিআইকে নিয়ে সিট গঠনের নির্দেশ, সহযোগিতায় রাজ্য পুলিশ

সন্দেশখালির ঘটনায় মঙ্গলবার পুলিশের ভূমিকা নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেছিল কলকাতা হাইকোর্ট। এবার এই মামলার প্রেক্ষিতে বুধবার রায়দান করে কলকাতা হাইকোর্ট। ৮ ও ৯ নম্বর মামলার তদন্তে সিবিআই ও রাজ্যের আইপিএস পদমর্যাদার আধিকারিকদের নিয়ে এদিন সিট গঠন করার নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্ট। সঙ্গে এও জানানো হয়, হাইকোর্টের নজরদারিতে এই তদন্ত চলবে। প্রয়োজনে সিট কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং রাজ্য পুলিশের সবরকম সহযোগিতা নেবে। দরকারে তারা নিজেদের নিচু তলার অফিসার নিয়োগ করতে পারবে।

এখানে বলে রাখা শ্রেয়, বর্তমানে ইসলামপুরে কর্মরত রয়েছেন আইপিএস যশপ্রীত সিং। তাঁকে রাজ্য এই টিমের জন্য নিয়োগ করেছে। এদিকে বৃহস্পতিবারের মধ্যে সিবিআইকে তাদের অফিসার নিয়োগ করতে হবে। সিট গঠনের পাশাপাশি বিচারপতি সেনগুপ্ত এদিন এও জানান, যদি সদর্থক ফলাফল না পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে আদালত এই টিমকে বদল করার আগে দ্বিধা বোধ করবে না। পাশাপাশি আদালত এদিন আরও স্পষ্ট করে যে হাইকোর্টের রিপোর্ট ছাড়া চূড়ান্ত রিপোর্ট জমা দেওয়া যাবে না। ন্যাজাট থানা বা বর্তমান আইও এই তদন্তে কোনওভাবেই যুক্ত থাকতে পারবে না।

উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারি ঘটনার পর এই ন্যাজাট থানাতেই পরপর দুটি এফআইআর দায়ের হয়। ঘটনার পর যে দুটি এফআইআর দায়ের হয়, সেগুলিতে সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছিল ইডি। দুটো মামলার ক্ষেত্রেই সিট গঠন করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। হাইকোর্টের নির্দেশ, সিট রিপোর্ট দেবে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে। বর্তমানে যাঁরা তদন্ত করছে, তাঁদের সব তথ্য তুলে দিতে হবে সিট-এর হাতে। আদালতের নির্দেশ ছাড়া চূড়ান্ত রিপোর্ট পেশ করা যাবে না বলেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। হাইকোর্টের নজরদারিতে হবে পুরো মনিটরিং। এই বিশেষ টিম চাইলে রাজ্য বা কেন্দ্রের পুলিশের সাহায্য নিতে পারবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *