সেতুর রঙ বদলে রাজনীতি, নীল-সাদা থেকে ব্ল্যাক হোয়াইট

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাঁকুড়া: বছর ঘুরলেই লোকসভা নির্বাচন। তার আগে রাতারাতি বদলে গেল জাতীয় সড়কে সেতুর রঙ। সেতুর নীল-সাদা রঙ বদলে করা হল সাদা-কালো। এই রঙ বদলে লেগেছে রাজনীতির রঙ। সেতুর বারংবার এই রঙ বদল না করে বেহাল সড়কের হাল ফেরালে মানুষ উপকৃত হত বলে দাবি পথচারীদের।
৬০ নম্বর জাতীয় সড়কের ওপর বাঁকুড়া শহর লাগোয়া গন্ধেশ্বরী নদীতে রয়েছে একটি সেতু। এই সেতুর বয়স বেশ পুরনো। ২০১১ সালের আগে এই সেতুর রেলিংয়ের রঙ ছিল সাদা-কালো। ২০১১ সালে রাজ্যে পালা বদলের পর আর পাঁচটা সরকারি নির্মাণের মতোই রঙ বদলেছিল এই সেতুরও। ২০১১ সালে নীল-সাদা রঙে সেজে ওঠা ওই সেতুতে গত ১২ বছরে বেশ কয়েকবার একই রঙের প্রলেপ পড়েছে। তবে সম্প্রতি জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ ওই সেতুর ওপরের রাস্তায় সংস্কারের কাজ করার পর সেতুর নীল-সাদা রঙ মুছে সেখানে সাদা কালো রঙ করতে শুরু করে।
আর এই ঘটনায় লাগতে শুরু করে রাজনীতির রঙ। বিজেপির দাবি, সমস্ত বিধি ভেঙে এতদিন রাজ্যের সরকার সর্বত্র নীল-সাদা রঙ করে মানুষকে ভাঁওতা দিয়ে গিয়েছে। সেই নীল-সাদা মুছে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ এখন বিধিসম্মত রঙ করতে উদ্যোগী হয়েছে। তৃণমূলের অবশ্য দাবি, বিজেপি রঙের রাজনীতি করে। তৃণমূল উন্নয়নের রাজনীতি করে। এই সব রাজনৈতিক কচকচানি থেকে দূরে দাঁড়িয়ে সাধারণ মানুষের দাবি, বারংবার রঙ বদলের নামে সরকারি অর্থের অপচয় না করে, সেই টাকায় জেলার বেহাল সড়কগুলির হাল ফেরাতে উদ্যোগী হোক সরকার। সেতুর এই রঙ বদল নিয়ে জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের বক্তব্য মেলেনি। তবে সূত্রের খবর, পথ দুর্ঘটনা এড়াতে নীল-সাদার তুলনায় সেতুতে কালে- সাদার রঙ অনেক বেশি কার্যকর। সেই যুক্তিতেই রঙ বদল করা হচ্ছে সেতুর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *