হাসপাতালের গাফিলতিতে আবর্জনা পরিষ্কার না হওয়ার দাবি সভাধিপতির

সৈয়দ মফিজুল হোদা, বাঁকুড়া: শুক্রবার সকালে বাঁকুড়ার ওন্দা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্র পরিদর্শন করে হাসপাতালের গাফিলতিতে নোংরা আবর্জনা পরিষ্কার হয়নি বলে দাবি করলেন বাঁকুড়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি অনুসূয়া রায়। আচমকা হাসপাতালে পরিদর্শনে গিয়ে হাসপাতাল চত্বরের নোংরা আবর্জনা চোখে পড়ল সভাধিপতির। এই পরিবেশে চিকিৎসা করাতে এলে রোগ সারবে কী করে বিএমওএইচকে প্রশ্ন করলেন সভাধিপতি।
কাউকে না জানিয়ে আচমকা শুক্রবার সকালে বাঁকুড়ার কৃষ্ণনগর গ্রামে অবস্থিত ওন্দা ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে ঢুকে পড়েন বাঁকুড়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি অনুসূয়া রায়। সাইপ্রাইজ ভিজিটে গিয়ে হাসপাতালে নোংরা আবর্জনার পরিবেশের দাবিতে ক্ষুব্ধ হন সভাধিপতি। ব্লকের বিএমওএইচকে সামনে পেয়ে নোংরা আবর্জনা কেন পরিষ্কার হয়নি বলে প্রশ্ন করেন সভাধিপতি। এই পরিবেশ থাকলে হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে আসা মানুষজন আরও অসুস্থ হয়ে পড়বে বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন সভাধিপতি।
সভাধিপতিকে হাসপাতাল চত্বরে পেয়ে নানান সমস্যার কথা তুলে ধরেন স্থানীয় মানুষ থেকে রোগীর আত্মীয়ারা। এদিন হাসপাতাল চত্বরে ইন্ডোর আউটডোর বিভাগ ঘুরে রোগীর আত্মীয়দের সঙ্গে কথা বলে হাসপাতালের নানান সমস্যার কথা শোনেন সভাধিপতি। হাসপাতালে চিকিৎসক, নার্স ও কর্মীদের ব্যবহার কেমন তার খবর নেন তিনি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতে এই নোংরা আবর্জনা হয়ে রয়েছে বলে দাবি করেন সভাধিপতি। হাসপাতালের নোংরা আবর্জনা পরিষ্কার হয়েছে কিনা তা আবার খোঁজ নিতে আসবেন বলেও জানান তিনি।
বিএমওএইচকে এলাকার মানুষ স্বার্থে হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবা ও হাসপাতাল চত্বর পরিষ্কার রাখার পরামর্শ দেন। হাসপাতালের পরিকাঠামোর বিষয় খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। হাসপাতাল আবর্জনা হয়ে আছে একথা স্বীকার করেন বিএমওএইচ। তবে তিনি নতুন এসেছেন বলে নিজের দায় এড়িয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *