বাংলাদেশকে সহজে হারিয়ে সেমিফাইনালের আশা জিইয়ে রাখল মিতালির ভারত

ফের দাপট মিতালি রাজের ভারতীয় দলের। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে জয়ের রাস্তায় ফিরল ভারত। বিশ্বকাপের মরণ বাঁচন ম্যাচে ১১০ রানে বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিফাইনাল পর্বে যাওয়ার আশা জিইয়ে রাখলেন ঝুলনরা। এই ম্যাচ জিতে পয়েন্ট টেবিলে তিন নম্বরে উঠে এল ভারত। ৬ ম্যাচ খেলে ভারতের সংগ্রহ ৬ পয়েন্ট। ভাল রানরেট থাকার কারণে পয়েন্ট টেবিলে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে টপকে গেল ভারত। কয়েক বছর আগেও ক্রিকেট মাঠে ভারতকে প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে ফেলে দিতেন শাকিব আল হাসান, মুস্তিফিজুররা। কিন্তু বাংলাদেশের মহিলা ক্রিকেটাররা ভারতের বিরুদ্ধে সেভাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা আর করতে পারল কোথায়!  ১১৯ রানে থেমে গেল বাংলাদেশ। পুরো ৫০ ওভারও ব্যাটিং করতে পারল না তারা।  ৪০.৩ ওভারে শেষ হয়ে গেল বাংলাদেশ।

মঙ্গলবারের ম্যাচটার গুরুত্ব ভারতের কাছে ছিল অন্যরকমের। টস জিতে ভারত অধিনায়ক মিতালি রাজ  প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন। ওপেনিং জুটি নিয়ে ভারতীয় শিবিরের চিন্তা কিছুটা হলেও কমল এদিনের পর। স্মৃতি মান্ধানা এবং শেফালি ভার্মা জুটিতে ৭৪ রান জোড়ে। স্মৃতির ব্যাট থেকে আসে ৩০ রান। শেফালি ৪২ রান করেন। তিন নম্বরে নেমে ইয়াস্তিকা ভাটিয়া অর্ধশতরান করেন। ৮০ বল খেলে ৫০ রান করেন ইয়াস্তিকা। ম্যাচের সেরার পুরস্কারও তাঁর হাতেই উঠল। শুরুর দিকের ব্যাটাররা ভাল খেললেও ভারতের মিডল অর্ডার এদিন ব্যর্থ হয়।

মিতালি রাজ হতাশ করেন। খাতা না খুলেই ফিরতে হয় ভারত অধিনায়ককে। তাঁর উইকেটটি নেন রিতু মণি। হরমনপ্রীত ১৪ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন। যদিও আগের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে এই দুই তারকা ভারতীয় ক্রিকেটার রান পেয়েছিলেন। দ্রুত উইকেট যাওয়ার পরে কিছুটা হলেও চাপ এসে পড়ে ভারতের উপরে। রিচা ঘোষ (২৬), পূজা ভস্ত্রাকর (৩০*) এবং স্নেহ রানার (২৭) দাপটে ভারত করে সাত উইকেটে ২২৯ রান। বলতে গেলে দ্রুত উইকেট হারানোর পরে রিচা, পূজা ও স্নেহর ব্যাটিং ভারতকে ভাল জায়গায় পৌঁছে দেয়।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের ইনিংসে শুরুতেই আঘাত হানেন ভারতীয় বোলাররা। বাংলাদেশের রান যখন মাত্র ১২, তখন রাজেশ্বরী গায়কোয়াড় ফিরিয়ে দেন বাংলাদেশ ওপেনার শারনিম আখতারকে (৫)। ভারতের রান সাফল্যের সঙ্গে তাড়া করে ম্যাচ জিততে হলে পার্টনারশিপ গড়তে হত। কিন্তু বাংলাদেশ সেই কাজটাই করতে পারেনি। হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে বাংলাদেশের ইনিংস। ভারতীয় বোলারদের  সামনে টিকে থাকতে পারেননি বাংলাদেশের কোনও ব্যাটার। দুই অঙ্কের রানে পৌঁছতে পারেননি অধিকাংশ বাংলাদেশি। একমাত্র লড়লেন সালমা খাতুন (৩২) ও লতা মণ্ডল (২৪)। ভারতীয় বোলারদের মধ্যে স্নেহ রানা চারটি উইকেট নেন।

বিশাল ব্যবধানে জিতে তৃপ্ত ভারতীয় শিবির। গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে ভারতের মুখোমুখি হবে দক্ষিণ আফ্রিকা। এতদিন পর্যন্ত অপরাজিত থাকলেও আজকে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে গিয়েছে প্রোটিয়ারা। টুর্নামেন্টে সাড়া জাগিয়ে শুরু করেও তিনটি ম্যাচ হেরে যায় ভারত। আজকের ম্যাচ জিতে ভারতের নেট রান রেট অনেকটাই ভাল হয়েছে। বিশাল ব্যবধানে জিতে ভারতের নেট রান রেট এখন ০.৭৬৮। ওয়েস্ট ইন্ডিজের নেট রান রেট -০.৮৮৫ । এক সময়ে সেমিফাইনালের দরজা প্রায় বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল ভারতের। সোমবার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে দেয় পাকিস্তান। আর পাক দলের এই জয়ের ফলে ভারতের কাজ কিছুটা হলেও সহজ হয়ে যায়। বাংলাদেশকে হারানোর ফলে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে যাওয়ার পথে একধাপ এগোল ভারত।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × one =