যৌনপল্লির শিশুদের জন্য বিশেষ স্কুল, শিক্ষক যৌনকর্মীদের সন্তানরাই

সমাজের একাংশের প্রয়োজন ওঁদের। তবে সমাজের কাছে ওঁরা ব্রাত্য। ব্রাত্য ওঁদের সন্তানরাও।
ওঁরা যৌনকর্মী। মা দুর্গার পুজোয় যৌনপল্লির মাটির দরকার হলেও, দিনের আলোয় ওঁদের থেকে নিজেদের সরিয়ে নেয় সমাজ।  বাচ্চাদের স্কুলে ভর্তি করতে গেলে সমস্যা হয় পিতৃ পরিচয় নিয়ে। যদি বা  বাধা টপকে ভর্তি হয় ওরা, স্কুলে গেলেও মায়ের নামে শুনতে হয় নানা বাজে কথা।
এবার ওদের কথা ভেবেই কলকাতার কালীঘাটের যৌনপল্লিতে তৈরি হল অভিনব ßুñল ! যৌনকর্মীর সন্তানদের কথা মাথায় রেখে এই স্কুলের ব্যবস্থা করল ‘আমরা পদাতিক’ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। ‘ব্রেক দ্য বেরিয়ার’ নামের ওই প্রতিষ্ঠানটি পিছিয়ে যাওয়াদের জন্য কাজ করবে। মায়ের পেশাকে সম্মান জানিয়েই যৌনকর্মীদের সন্তানরাই পড়তে এবং পড়াতে আসবেন এখানে। পড়াশোনার পাশাপাশি এখানে শেখানো হবে নাচ, গান, ছবি আঁকাও। কলকাতার কালীঘাট বাজারের কাছের যৌনপল্লির এই প্রতিষ্ঠানই পথ দেখাবে নতুন করে, দাবি উদ্যোক্তাদের। এ প্রসঙ্গে ‘আমরা পদাতিক’ সংগঠনের সভাপতি রতন দলুই জানান, ‘আমরা বহু বছর ধরে যৌনকর্মীদের পেশাকে সম্মান জানিয়ে কাজ করছি। মূলত, যারা কাজ করি প্রায় প্রত্যেকেই যৌনকর্মীদের সন্তান। এক্ষেত্রেও অন্যথা হয়নি। এটিকে স্কুলই বলতে পারেন।  যেখানে স্কুলছুট থবা স্কুলে পড়তে পারে না এমন সকলেরই পড়ার ব্যবস্থা হয়েছে। মায়ের কাজের সময় অর্থাৎ সন্ধ্যা থেকে নানা বিষয়ে শিক্ষা পাবে পড়ুয়ারা।’ ইতিমধ্যেই ‘আমরা পদাতিকে’র এই স্কুলে পড়ুয়া সংখ্যা ৫০ হয়ে গিয়েছে। সন্ধ্যায় পড়াশোনার সঙ্গেই বেড়ে ওঠার স্বপ্ন দেখতে হাজির হয়েছে ওরা। নতুন স্কুলে আসা এক পড়ুয়র কথায়, ‘আমি স্কুলে যেতে পারিনি, সবাই বাজে কথা বলে স্কুলে গেলে। এখানে আসছি। ভালো লাগছে।’ পড়তে, খেলতে, নাচ-গান শিখতে উৎসাহী বাকি বাচ্চারাও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five − four =