পুতিনকে সমর্থন করলে উইম্বলডনে খেলতে পারবেন না রুশ খেলোয়াড়রা

লন্ডন: রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের সরাসরি প্রভাব পড়েছে খেলার মাঠেও। ফিফা ও উয়েফা রাশিয়ার জাতীয় ফুটবল দল ও ক্লাবগুলোকে নির্বাসিত করেছে। রাশিয়ান বিজনেস টাইকুন রোমান আব্রাহামোভিচকে ব্যান করেছে ইংল্যান্ড সরকার। যে কারণে চেলসির মালিকানা আর রাখতে পারেননি তিনি। রাশিয়ার পাশে থাকায় বেলারুসের খেলোয়াড় ও দলগুলোকেও পেতে হচ্ছে শাস্তি। রাশিয়ান খেলোয়াড়দের গোটা বিশ্বে দেখা হচ্ছে সন্দেহের চোখে। কিন্তু তাতেও ভ্লাদিমির পুতিনের মন গলছে না। দেশের প্রেসিডেন্টের এই অবস্থানের খেসারত এ বার দিতে হতে পারে রাশিয়ার তারকা টেনিস  খেলোয়াড় দানিল মেদভেদেভকে, পরিস্থিতি সেই দিকেই এগিয়ে চলেছে ক্রমশ। রাশিয়ার বিরোধী ক্যাম্পে যোগ দেওয়া দেশগুলোর মধ্যে সামনের সারিতে আছে ইংল্যান্ড। সে দেশেই জুন মাসের ২৭ তারিখ থেকে শুরু বছরের দ্বিতীয় গ্র্যান্ড স্লাম উইম্বলডন। সেখানে রাশিয়ার খেলোয়াড়দের খেলা নিয়েই এ বার উঠে গেল জোরালো প্রশ্ন।

ইংল্যান্ডের মাটিতে রাশিয়ার পতকা উড়বে, সেটা কোনও ভাবেই বরদাস্ত করবে না সে দেশের সরকার। তাই রাশিয়ান অ্যাথলিটদের ইংল্যান্ডে খেলার জন্য দেওয়া হয়েছে এক আশ্চর্য শর্ত, তাঁকে জানাতে হবে তিনি পুতিনের বিরোধী। মৌখিক নয়, রীতিমতো বিবৃতি দিয়ে জানাতে হবে, তিনি ইউক্রেনের ওপর রাশিয়ার আগ্রাসনকে সমর্থন করেন না। কার্যত মুচলেকা দিয়েই রাশিয়ার খেলোয়াড়দের খেলতে হবে ইংল্যান্ডের মাটিতে। পার্লামেন্ট কমিটির সামনে এমনটাই জানিয়েছেন ইংল্যান্ডের ক্রীড়ামন্ত্রী নাইজেল হাডেলসন। বলেছেন, “রাশিয়ার খেলোয়াড়দের যে কোনও টুর্নামেন্টে খেলার অনুমতি না দেওয়ার জন্য একাধিক দেশ এক মত। পাশাপাশি ভিসার বিষয়টিও আছে। দলগত ইভেন্টের থেকে ব্যক্তিগত ইভেন্টের খেলোয়াড়দের নিয়ে সমস্যা একটু বেশি। তবে এই দেশে রাশিয়ার পতাকা উড়বে না, সেটা নিশ্চিত। যে সব খেলোয়াড়দের দুটো দেশের নাগরিকত্ব আছে, তারা কোনও দেশের হয়েই খেলতে পারবে না। দেশের নাম ও পতাকা ছাড়া খেলতে হবে তাদের।

তাহলে কি উইম্বলডনে বিশ্বের দু’নম্বর টেনিস তারকা দানিল মেদভেদেভ খেলতে পারেবন না? উইম্বলডনের আয়োজক অল ইংল্যান্ড ক্লাবের সঙ্গেও কথা বলা শুরু করেছে ইংল্যান্ড প্রশাসন। “আমাদের নিশ্চিত হতে হবে যে, সংশ্লিষ্ট খেলোয়াড় পুতিনের সমর্থক নন এবং ইউক্রেনের ওপর হামলাকে তিনি কোনও ভাবেই সমর্থন করেন না।” বলেছেন ইংল্যান্ডের ক্রীড়ামন্ত্রী। নাইজেলের কথা ধরলে কিন্তু মেদভেদেভের পক্ষে উইম্বলডনে খেলা কঠিন হতে চলেছে। রাশিয়ার আগ্রাসনকে কোনও প্লেয়ারই সমর্থন করেন না। মেদভেদেভও সেই তালিকায়। কিন্তু সরাসরি পুতিন বিরোধী মন্তব্য পেশ করতে চাইবেন কিনা, তা নিয়ে কিন্তু প্রশ্ন থাকছে। বিশেষ করে এই যুদ্ধের আবহে তা বেশ কঠিন কাজ হতে পারে মেদভেদেভের পক্ষে।

যুদ্ধ আবহে এখনও পর্যন্ত রাশিয়া ও বেলারুশের খেলোয়াড়দের এটিপি এবং ডাব্লুটিএ টুর খেলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু ডেভিস কাপ থেকে নির্বাসিত করা হয়েছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন রাশিয়াকে। এ বার দানিল মেদভেদেভ সহ রাশিয়ার টেনিস খেলোয়াড়দের ইউম্বলডনে নামার সম্ভাবনা নিয়ে রীতিমতো সংশয় তৈরি হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 + 18 =