আপাতত স্বস্তি, সুপ্রিম কোর্টে রক্ষাকবচ পেলেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল ও ডেপুটি সেক্রেটারি পার্থ কর্মকার

কলকাতা: অবশেষে খানিক স্বস্তি পেলেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল।ওএমআর শিট কেলেঙ্কারি মামলায় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল ও ডেপুটি সেক্রেটারি পার্থ কর্মকারকে রক্ষাবকচ দিল সুপ্রিম কোর্ট। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের নির্দেশের উপর স্থগিতাদেশ দিয়ে জানাল সর্বোচ্চ আদালত জানায়, মামলার পরবর্তী শুনানি না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের গ্রেপ্তার করা যাবে না।

এই মামলায়, ১৮ অক্টোবর কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় নির্দেশ দিয়েছিলেন, প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি গৌতম পাল ও ডেপুটি সেক্রেটারি পার্থ কর্মকারকে সিবিআই তদন্তের মুখোমুখি হতে হবে। প্রয়োজন মনে করলে পর্ষদের কোনও আধিকারিককেও জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারেন তদন্তকারীরা। তদন্তে সহযোগিতা না করলে, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা মনে করলে তাঁদের হেপাজতেও নিতে পারে।

হাইকোর্টের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছিলেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি এবং ডেপুটি সেক্রেটারি। গত সোমবার শুনানিতে গৌতম পাল ও পার্থ কর্মকারের আইনজীবীরা সর্বোচ্চ আদালতে সওয়াল করেন, ২০১৪ থেকে ২০১৭-র মধ্যে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। তাঁদের মক্কেলদের নিয়োগ হয়েছে ২০২২ সালে। সুপ্রিম কোর্ট ৩ নভেম্বরের মধ্যে সিবিআইকে তাদের বক্তব্য জানাতে বলে। যদিও সেদিন পর্ষদ সভাপতি ও ডেপুটি সেক্রেটারিকে রক্ষাকবচ দেয়নি সর্বোচ্চ আদালত। তাঁদের উদ্দেশে বিচারপতিরা বলেন, আপনারা যদি সহযোগিতাই করেন, তা হলে গ্রেফতারির আশঙ্কা করছেন কেন ?                                            সিবিআইয়ের বক্তব্য শোনার পর শুক্রবার তাঁদের রক্ষাকবচ দিল সর্বোচ্চ আদালত।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

11 − three =