পুরুলিয়ার জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসব শুরু আজ

নিজস্ব প্রতিবেদন, পুরুলিয়া: আজ ২৮ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার শুরু হচ্ছে পুরুলিয়ার বিখ্যাত জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসব ২০২৩-২৪ । আজও হীরক রাজার দেশ জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসবের জন্য প্রহর গোনে মানুষ। হালকা মেঘলা আবহাওয়ার সঙ্গে শীত উপেক্ষা করেই আজ দিনের পড়ন্ত বিকেলে আনুষ্ঠানিক ভাবে পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত সত্যজিৎ রায় মঞ্চে জয়চণ্ডী পাহাড় পর্যটন উৎসবের উদ্বোধন হবে।
২৮ ডিসেম্বর থেকে ১ জানুয়ারি অবধি পাঁচদিনব্যপী চলা এই উৎসব এবার ১৮তম বর্ষে পদার্পণ করবে। অন্যান্য বারের তুলনায় এবার মেলা নিয়ে মহকুমা প্রশাসন ও উৎসব কমিটি অনেকটাই বেশি উৎসাহী। ফি বছরের মতো এবারও এই উৎসবের আনন্দ উপভোগ করার জন্য ইতিমধ্যে বহিরাগত পর্যটকরা রঘুনাথপুরে এসে ভিড় জমিয়েছেন। এই উৎসবে পর্যটকদের নিরাপত্তার বিষয়ে রঘুনাথপুরের মহকুমাশাসকের নেতৃত্বে পুলিশ প্রশাসন ও মেলা কমিটির সদস্যদের মধ্যে একাধিকবার বৈঠক হয়ে গিয়েছে ইতিমধ্যে।
রাজ্যের পর্যটন মানচিত্রে এই পাহাড়কে পূর্ণাঙ্গ পর্যটন ক্ষেত্র রূপে গড়ে তুলতে তৈরি হয়েছে কটেজ ও যুব আবাস। এছাড়া পূর্ত দপ্তর ২ কোটি ২২ লক্ষ টাকায় ট্যুরিস্ট মর্টালও তৈরি করেছে। রঘুনাথপুরের মহকুমাশাসক তামিল ওভিয়া এস বলেন, ‘জয়চণ্ডী পাহাড়কে আমরা পূর্ণাঙ্গ পর্যটন কেন্দ্র রূপে গড়ে তুলতে একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি।’ উৎসব কমিটির সম্পাদক তথা রঘুনাথপুর পুরসভার পুরপ্রধান তরণী বাউরি জানান, আজ থেকে ১৭ বছর আগে পুরুলিয়ার রঘুনাথপুর শহর সংলগ্ন জয়চণ্ডী পাহাড়কে রাজ্যের পর্যটন মানচিত্রে তুলে আনার জন্যই শুরু হয়েছিল এই পর্যটন উৎসব। তাঁর দাবি, মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই যা অন্য মাত্রা পেয়েছে। আজ এই উৎসবকে ঘিরেই মানুষ মেতে ওঠে অনাবিল আনন্দে। যার জন্য সারা বছরের অপেক্ষায় থাকেন পুরুলিয়াবাসীদের সঙ্গে রাজ্যবাসী এমনকি পার্শ্ববর্তী ঝাড়খণ্ড রাজ্যের মানুষ।
উৎসব কমিটির সভাপতি সৌমেন বেলথরিয়া জানান, উৎসব ঘিরে পর্যটনের অঙ্গ হিসেবে হস্তশিল্পীদের বিশাল বাজার বসবে। রাজ্যের নানা কুটির শিল্পের পসরা মিলবে এই মেলায়। থাকবে ২০০টির বেশি স্টল। সেই সঙ্গে পাহাড় ছুঁয়ে নাগরদোলা, টয়ট্রেন আনন্দ দেবে পর্যটকদের। প্রতিদিন বিকেল থেকে রাত এগারোটা পর্যন্ত মেলা প্রাঙ্গণে সত্যজিৎ রায় মঞ্চে কলকাতার নামী শিল্পীদের সাংßৃñতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন হবে। জেলা আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, পুরুলিয়ায় ঠান্ডা পড়েছে এবার যথাসময়ে। সঙ্গে উত্তুরে হাওয়া, অন্যদিকে কুয়াশা। দুয়ে মিলিয়ে চাদরে -জ্যাকেটে একেবারে জবুথবু অবস্থা মেলায় আসা পর্যটকদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *