পঞ্জাবে আপ-ঝড়ে নাস্তানাবুদ বিরোধীরা

পঞ্জাবে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের ঝাড়ুর বাতাসে উড়ে গেল কংগ্রেস (Congress) । পঞ্জাব (Punjab) জয় আপের পক্ষে খুব সহজ ছিল, এমনটা নয়। কারণ পঞ্জাবের রাজনীতিতে কংগ্রেস, অকালি দল, বিজেপির মত বাঘা বাঘা প্রতিপক্ষ থাকলেও তাদেরকে রীতিমতো নাস্তানাবুদ করে সীমান্তবর্তী রাজ্যে বিপুল জয়ের দিকে কেজরিওয়ালের আপ। আম আদমি পার্টির (Aam Admi Party) এই জয়ের পিছনে নির্দিষ্ট কিছু কারণ রয়েছে।

যে পরিবর্তনের প্রত্যাশা থেকে পঞ্জাবের সাধারণ মানুষ কংগ্রেসকে ক্ষমতায় এনেছিল, ক্ষমতায় আসার পর থেকে দেখা গিয়েছে কংগ্রেস ও অকালি দলের কাজ করার পদ্ধতির মধ্যে সাদৃশ্য রয়েছে। তাই সাধারণ জনগণ ধরেই নিয়ে ছিলে রাজ্যে দলের পরিবর্তন হলেও আপাতভাবে কোনও পরিবর্তন হয়নি। দীর্ঘ ৭০ বছর ধরে সেখান কংগ্রেস -বিজেপির মত বড় দলগুলি ক্ষমতায় ছিল, তাই আপকে সুযোগ দিয়েছে পঞ্জাবের জনতা।

পঞ্জাবে জিতেই এক নতুন ভারত গড়ার ডাক দিলেন আম আদমি পার্টি (আপ)-র প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল। গোটা দেশে পরিবর্তনের জোয়ার আনতে হবে বলে দেশের যুব নেতৃত্বকে আহ্বান জানালেন তিনি। বুথফেরত সমীক্ষায় প্রথম থেকেই বলা হয়েছিল, ১১৭ বিধানসভা আসনে পঞ্জাবে চালকের আসনে থাকবে আপ। সেই পূর্বাভাস বজায় রেখেই ৯০টির বেশি আসনে জিতল কেজরির দল। এই বিপুল জয় প্রসঙ্গে কেজরি বলেন, এই জয় পঞ্জাবের মানুষের জয়। এই রাজ্যের মানুষ আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের জবাব দিয়েছে। এর জন্য তাঁদের কাছে আমি এবং আমার দল কৃতজ্ঞ। আপের এই জয় বড় বড় সব নেতাদের গদি টলিয়ে গিয়েছে বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। কেজরির কথায়, ‘পঞ্জাবে আপের এই জয় রাজ্যের বহু তাবড় নেতার গদি উল্টে দিয়েছে। ক্যাপ্টেন হেরেছেন, প্রকাশ সিং বাদল হেরেছেন, সুখবীর সিং বাদল এবং চন্নির মতো তাবড় নেতাদের জবাব দিয়েছে পঞ্জাবের জনগণ।’

একই সঙ্গে কেজরির বক্তব্য, এ বার সিস্টেম বদলের পালা এসেছে। এত দিন ধরে রাজনৈতিক দলগুলি জনসাধারণকে বোকা বানিয়ে দেশকে লুটেছে। তাই সেই সিস্টেম ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়ার ডাক দিয়েছেন কেজরি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

five + 6 =