ওয়ার্নকে ৩০ মার্চ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষ বিদায় জানাবে এমসিজি

শচীন তেণ্ডুলকরের যেমন ওয়াংখেড়ে, মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড ঠিক তেমনই ক্রিকেটের ধাত্রীগৃহ ছিল শেন কিথ ওয়ার্নের। গোটা বিশ্বকে স্তব্ধ করে দিয়ে পৃথিবী ছেড়ে ওয়ার্ন চলে গিয়েছেন দিন কয়েক হল। শোনা যাচ্ছিল, অস্ট্রেলীয় সরকার প্রয়াত ওয়ার্নকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষ বিদায় জানাবে এমসিজিতে, তাঁর প্রিয় মাঠে। আগামী দু’তিন সপ্তাহের মধ্যে। এবার তার দিনক্ষণও ঘোষণা হয়ে গেল। আগামী ৩০ মার্চ। আগামী ৩০ মার্চ এমসিজিতে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শেষ বিদায় জানাবে অস্ট্রেলিয়ার স্কট মরিসন সরকার। বুধবার তার সরকারি ঘোষণা হয়ে গেল।

এমসিজিতে প্রচুর সুখস্মৃতি রয়েছে প্রয়াত লেগস্পিন জাদুকরের। ’৯৪-এর অ্যাসেজে ওয়ার্নের বিখ্যাত হ্যাটট্রিক এ মাঠে। ২০০৬ সালে ঐতিহাসিক সাতশো উইকেটের মহাকীর্তিও স্পর্শ এমসিজিতেই। ভিক্টোরিয়ার স্টেট প্রিমিয়ার ড্যানিয়েল অ্যান্ড্রুজ এ দিন টুইট করে বলে দিলেন, ‘ওয়ার্নিকে শেষ বিদায় জানাতে এমসিজির চেয়ে ভাল মঞ্চ আর গোটা বিশ্বে নেই।’ তবে তার আগে ওয়ার্নের পরিবারের পক্ষ থেকে একটা শেষকৃত্য অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। যা থাকবে একান্ত ব্যক্তিগত। তার পর এমসিজিতে রাজকীয় ভাবে শেষ বিদায়।

ওয়ার্নের ম্যানেজার জেমস এরস্কিন এ দিন বলেছেন যে, কিংবদন্তি লেগস্পিনারের শেষকৃত্যে যোগ দিতে গোটা বিশ্ব উৎসুক। বলেছেন, “যাঁরা আসতে পারবেন, সশরীরে এমসিজিতে আসবেন। যাঁরা পারবেন না, বার্তা পাঠাবেন। তবে সবাই আসতে চান। যেমন এল্টন জন নিজের একটা শো ওয়ার্নের নামে উৎসর্গ করেছেন। অস্ট্রেলিয়া একটু দূর। নইলে প্রচুর লোক আসতেন।”
খবর যা, তাতে এমসিজিতে ওয়ার্নকে চিরবিদায় অনুষ্ঠানে টিকিটের বন্দোবস্ত করা হতে পারে। যাতে সবাই বসে দেখতে পারেন। তবে কত লোক আসবেন, তা নির্ভর করবে ওয়ার্নের পরিবারের উপর। তাঁদেরই বলা হয়েছে, সেটা ঠিক করতে।

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের উপস্থিত থাকা মোটামুটি নিশ্চিত। বিখ্যাত দুই গায়ক ক্রিস মার্টিন এবং এড শিরানও ভাবনাচিন্তা শুরু করেছেন ইতিমধ্যে আগামী ৩০ মার্চ অস্ট্রেলিয়া উড়ে আসার। তাঁরাও এমসিজির অনুষ্ঠানে থাকতে চান।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − 4 =