একইদিনে মুখ্যমন্ত্রী ও রাহুল গান্ধির সফর ঘিরে ঊর্ধ্বমুখী মালদার রাজনৈতিক পারদ!

মালদায় একইদিনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি এবং সর্বভারতীয় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধির সফরকে ঘিরে ঊর্ধ্বমুখী জেলার রাজনীতির পারদ। ৩১ জানুয়ারি বুধবার দুপুরে ইংরেজবাজার শহরের জেলা ক্রীড়া সংস্থার মাঠেই অনুষ্ঠিত হবে মুখ্যমন্ত্রীর মমতা ব্যানার্জির প্রশাসনিক বৈঠক। তার ঠিক উল্টোদিকে চাঁচল মহকুমার হরিশ্চন্দ্রপুরে ভারত জড়ো ন্যায়যাত্রায় অংশ নেবেন সাংসদ তথা সর্বভারতীয় কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধি। ইতিমধ্যে যে রাস্তা দিয়ে রাহুল গান্ধির পদযাত্রা যাবে, সেখানে এআইসিসির কেন্দ্রীয় কমিটির নেতারা তদারকি করে গিয়েছেন। ইতিমধ্যে স্পেশ্যাল প্রটেকশন গ্রুপ (এসপিজি) একটি টিমও হরিশ্চন্দ্রপুরে এসে পরিস্থিতি তদারকি করেছেন।

দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার রাহুল গান্ধির পদযাত্রাকে স্বাগত জানাতে হরিশ্চন্দ্রপুরে জোর কদমে চলছে কংগ্রেসের প্রস্তুতি। ৩১ জানুয়ারি সকাল এগারোটা নাগাদ কটিহার-লাভা ৩১ নং জাতীয় সড়ক ধরে মালদায় প্রবেশ করবে রাহুল গান্ধির পদযাত্রা। বাংলা-বিহার সীমান্তবর্তী এলাকা মোহড়াপাড়া থেকে শুরু করে খোপাকাটি ও তেলজান্না মোড় হয়ে ভালুকায় পৌঁছবে এই পদযাত্রা। রাহুল গান্ধিকে স্বাগত জানাতে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার সাদলিচক গ্রাম পঞ্চায়েতের মোহড়াপাড়ায় চলছে জোড় প্রস্তুতি। তৈরি হচ্ছে স্বাগতম প্রবেশদ্বার ও মঞ্চ। বাংলা ও বিহারের কংগ্রেসের নেতা কর্মীরা দফায় দফায় এসে প্রস্তুতি পর্ব পরিদর্শন করে যাচ্ছেন। মালদার মানুষ রাহুলকে দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে। রাহুলের কর্মসূচিতে জনপ্লাবন হবে বলে মনে করছেন কংগ্রেসের নেতা কর্মীরা। দলের একটি সূত্র থেকে জানা গিয়েছে, ৩১ জানুয়ারি রাতে মালদায় থাকার পরিকল্পনা রয়েছে সাংসদ রাহুল গান্ধির।

মালদা জেলা যুব কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউর রহমান বলেন, ভারত জড়ো ন্যায়যাত্রায় কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি মণিপুর থেকে শুরু করেছেন। সেই যাত্রা এবার মালদায় প্রবেশ করতে চলেছে। তার আগে থেকে আমরা গোটা হরিশ্চন্দ্রপুর এলাকা বিভিন্ন প্রচারের মাধ্যমে তুলে ধরেছি। এদিকে একই দিনে ইংরেজবাজার শহরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির প্রশাসনিক বৈঠকে ঘিরেও শুরু হয়েছে ব্যাপক তাৎপরতা। তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা বিধায়ক আধুর বক্সী জানিয়েছেন, বুধবার দুপুরে মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে প্রশাসনিক বৈঠক হবে। তার আগে উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরের প্রশাসনিক বৈঠক শেষ করেই মালদায় প্রবেশ করবেন মুখ্যমন্ত্রী। মালদার কর্মসূচি শেষ হওয়ার পরেই মুর্শিদাবাদে রওনা দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *