করোনার বাড়বাড়ন্তে কর্নাটকে ফের বাধ্যতামূলক আইসোলেশন

দেশে অ্যাকটিভ কেসের সংখ্যা বাড়ছে। নতুন করে ভয় ধরাতে শুরু করেছে করোনা। এই পরিস্থিতিতে কোভিড আক্রান্তদের বাড়িতে ৭ দিনের আইসোলেশনে থাকা বাধ্যতামূলক করল কর্নাটক। মঙ্গলবারই এই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে রাজ্য প্রশাসনের তরফে।

দেশে রবিবার পর্যন্ত জেএন.১ উপরূপে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ৬৩। সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, আক্রান্তদের মধ্যে বেশির ভাগই গোয়ার বাসিন্দা। সেখানে নতুন উপরূপে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪ জন। ন’জন মহারাষ্ট্রের, আট জন কর্নাটকের, ছ’জন কেরলের, চার জন তামিলনাড়ুর, দু’জন তেলঙ্গানার বাসিন্দা। বিশেষজ্ঞেরা মনে করছেন, নতুন উপরূপ ততটা ভয়ঙ্কর নয়, তবে ছোঁয়াচে। তাই সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্র।

মঙ্গলবারই নতুন করে ৭৪ জন আক্রান্ত হয়েছেন কর্নাটকে। এর মধ্যে ৫৭ জনই বেঙ্গালুরুর বাসিন্দা। ইতিমধ্যে মৃত্যু হয়েছে দুজনের। এই পরিস্থিতিতে নড়েচড়ে বসেছে কর্নাটক স্বাস্থ্য দপ্তর। সরকারি ও বেসরকারি কর্মীদের ক্ষেত্রে সংক্রমণ ধরা পড়লে ৭ দিন বাড়িতে থাকতে বলা হয়েছে। প্রতিদিন ৫ হাজার কোভিড পরীক্ষা করা হবে। তবে আপাতত নতুন বছরের উদযাপনে কোনও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়নি। অন্য রাজ্যে যেতেও বাধা নেই। কিন্তু যাঁদের কোমর্বিটি রয়েছে তাঁদের মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। একই নিয়ম প্রযোজ্য বর্ষীয়ান নাগরিকদের জন্যও। কোনও শিশু জ্বর, সর্দিকাশিতে ভুগলে তাকে স্কুলে না পাঠানোর পরামর্শও দেওয়া হয়েছে অভিভাবকদের।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *