চিনে আবার লকডাউন! ঘরবন্দি ৯০ লক্ষ বাসিন্দা

কোভিড-সংক্ৰমণ (Covid) রুখতে কঠোরতার পথ ফের অবলম্বন করল চিন। উত্তর-পূর্ব চিনের একটি শহরে আচমকাই বেড়েছে করোনার প্রকোপ, তাই লকডাউনের পথে হাঁটল প্রশাসন। উত্তর-পূর্ব চিনের ওই শহরের নাম চাংচুন। করোনার আগ্রাসন রুখতে ঘরবন্দি করা হয়েছে শহরের ৯০ লক্ষ বাসিন্দাকে। আপাতত বাড়ির বাইরে কেউ বেরোতে পারবেন না, চলছে গণ টেস্টিং।

একটি নতুন ভাইরাসের (New Virus) আবির্ভাব ঘিরে আতঙ্ক ছড়াল উত্তর-পূর্ব চিনের চাংচুনে। জিলিন প্রদেশের রাজধানী চাংচুন। গুরুত্বপূর্ণ শিল্পশহরও বটে। সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউন (Lockdown) জারি করা হয়েছে এই শহরে।

প্রশাসনের তরফে এক নির্দেশিকা জারি করে বলা হয়েছে, পরিবারের এক জন সদস্য ছাড়া বাড়ির বাইরে কেউ বেরতে পারবেন না। তাও আবার দু’দিন অন্তর। শুধু তাই নয়, সমস্ত শহরবাসীকে তিনটি পর্যায়ে শারীরিক পরীক্ষা করাতে হবে। আপৎকালীন পরিষেবা ছাড়া বাকি সমস্ত কিছু বন্ধ রাখতে হবে। এ সপ্তাহে চিনে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে। নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৩৯৬। ২০২০-তে কোভিড সংক্রমণের পর থেকে যা এই প্রথম। তিন সপ্তাহ আগেও চিনে দৈনিক সংক্রমণ ছিল একশোরও নীচে। সাংহাইতেও লকডাউনের প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। শুক্রবারই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলি বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছে সাংহাই প্রশাসন। রাজধানী বেজিংয়েও কোনও কোনও জায়গায় আংশিক আবার কোনও জায়গায় পূর্ণাঙ্গ লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ ও বৃহৎ অর্থনীতিগুলির মধ্যে চিনই একমাত্র দেশ, যারা এখনও করোনা-শূন্য নীতি থেকে সরে আসতে নারাজ। হাতেগোণা কিছু মানুষের কোভিড ধরা পড়লেই গোটা শহরকে গৃহবন্দি করা হচ্ছে। বিগত ২৪ ঘন্টায় সমগ্র চিনে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৫৫৫ জন, মৃত্যু হয়নি কারও। সংক্রমণের হার কম হলেও, এখনও করোনা-মুক্ত হতে পারেনি চিন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen − ten =