আউশগ্রামের জঙ্গলমহলে ছবির শুটিংয়ে কাজল

নিজস্ব প্রতিবেদন, আউশগ্রাম: পূর্ব বর্ধমান জেলার আউশগ্রামের কালিকাপুরে শুরু হয়েছে আগামী হিন্দি ‘মা’ ছবির শুটিং।
‘ট্রায়াল’ ছবির পর ‘মা’ ছবির শুটিংয়ে ফের পশ্চিমবঙ্গে আসলেন অজয়পত্নী কাজল। তাঁর সঙ্গে ছোট পর্দা কাঁপানো কেডি পাঠক চরিত্র খ্যাত রণিত রায়ও এসেছেন। শুক্রবার কলকাতা এয়ারপোর্টে নেমে সোজা বোলপুরে আসেন কাজল ও রণিত। তারপর সেখান থেকে শনিবার সকালে আউশগ্রামের জঙ্গলমহলে ভৌতিক ছবির শুটিং শুরু করলেন কাজল। আউশগ্রামের কালিকাপুর, আদুরিয়ার জঙ্গল সহ একাধিক জায়গায় নানান দৃশ্যের শুটিং রয়েছে কাজলের। শুধু দিনে নয় রাতেও করা হবে শুটিং। আউশগ্রামে কাজলকে একঝলক দেখতে সকাল থেকেই সেখানে ভিড় করেন স্থানীয় বাসিন্দারা।
বলিউড সুপারস্টার অজয় দেবগন প্রোডাকশনের বিগ বাজেটের ভৌতিক ছবিতে এই প্রথম অভিনয় করবেন তাঁর স্ত্রী কাজল। জানুয়ারি মাসে শুটিং করার কথা থাকলেও তা কাজলের ব্যস্ততার জন্য পিছিয়ে যায়। বিশাল ফুরিয়ার পরিচালনায় ‘মা’ ছবিতে শুটিং করছেন কাজল। ছবিতে একাধিক চমক থাকছে বলে জানা গিয়েছে। তথাকথিত অ্যাকশন, রোমান্টিক ছবির পরে ভৌতিক ছবিতে নতুন লুকে ধরা দেবেন বঙ্গতনয়া কাজল।
একবছর ধরে বোলপুর, আউশগ্রাম সহ নানা জায়গায় শুটিংয়ের জন্য রেইকি করে যান অজয় দেবগন ও প্রোডাকশনের লোকজন। এদিন আউশগ্রামে একটি মন্দিরে পুজো দেওয়ার দৃশ্য গ্রহণ করা হয় কাজলের। তারপর দুই শিশুর খেলাধুলো সহ নানা দৃশ্য নেওয়া হয়।পাশাপাশি এই এলাকায় একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র তৈরি করা হয়েছে সেখানেও শুটিং করার কথা রয়েছে রবিবার। বিগ বাজেটভিত্তিক ছবিতে কাজল একজন মায়ের ভূমিকা পালন করবেন বলে সূত্রের মাধ্যমে জানা গিয়েছে। এর বেশি ছবি সম্পর্কে বলতে নারাজ প্রোডাকশনের কেউ।
কাজলের শুটিং ঘিরে কড়া নজরদারি শুরু হয়েছে আউশগ্রাম জঙ্গলমহল জুড়ে। প্রচুর পুলিশি নিরাপত্তা রয়েছে গোটা এলাকায়। এগারো মাইল থেকে নানা রাস্তায় কড়া নজরদারি চালানো হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। কাজল বঙ্গতনয়া হলেও বহু বছর ধরে মুম্বই কাঁপিয়েছেন। নিজে বাঙালি হয়েও মারাঠি পরিবারের সুপারস্টার অজয় দেবগনকে বিয়ে করেছেন। দু’জনে একসঙ্গে একাধিক ছবিতে কাজও করেছেন।
তবে এবার বাংলার জঙ্গলমহলে ছবির শুটিং করাটাও কাজলের কাছে চরম উৎসাহের। এর আগেও আউশগ্রামের কালিকাপুরের জঙ্গলে বলিউডের পিপ্পা, তিন, রসগোল্লা, খণ্ডহা, ফাঁদে পড়িয়া বগা কাঁদে রে, হনুমান ডট কম সহ একাধিক টলিউড বলিউড ছবির শুটিং হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের ওপরে তৈরি পিপ্পার বেশির ভাগ দৃশ্য এখানে নেওয়া হয়েছে। জঙ্গলে মিলিটারি ট্যাঙ্কার নিয়ে যুদ্ধের পুরো দৃশ্য এখানে করা হয়েছে। তবে এবার কাজলের আসা নিয়ে শোরগোল পড়েছে আউশগ্রাম জুড়ে। চারদিন ধরে এই এলাকায় কাজলের শুটিং চলবে বলে জানা গিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *