মালদ্বীপ থেকে ভারতের সেনা সরানো নিয়ে দ্বীপরাষ্ট্রের বিবৃতিতে জল্পনা

মালে, ৩ ফেব্রুয়ারি: মালদ্বীপ থেকে ভারত কি সেনা সরাবে? এখনও এই প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে। শুক্রবার দিল্লিতে প্রতিবেশী দ্বীপরাষ্ট্র থেকে ভারতীয় সেনা প্রত্যাহারের বিষয়ে আলোচনা করতে দু’ দেশের প্রতিনিধিরা দ্বিতীয় বার বৈঠকে বসেন। ভারতের তরফে জানানো হয়েছে, সেই বৈঠকে মালদ্বীপে থাকা ভারতীয় বিমানক্ষেত্রে সেনা কার্যকলাপ চালিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে কিছু সমাধানসূত্র মিলেছে। উভয় দেশই সেই সমাধান ইতিবাচক বলেই জানিয়েছে। তবে মালদ্বীপ থেকে সেনা প্রত্যাহার করা নিয়ে নিশ্চিত ভাবে কিছু জানায়নি ভারত।
এদিকে, আগামী মার্চ থেকে মে মাসের মধ্যে সেনা প্রত্যাহারের প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করা হবে বলে দাবি করা হয়েছে মালদ্বীপের বিদেশমন্ত্রকের তরফে। মালদ্বীপের বিদেশমন্ত্রক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘১০ মে-র মধ্যে মালদ্বীপে থাকা তিনটি বিমানক্ষেত্র থেকে সেনা সরিয়ে নেবে ভারত সরকার। এর মধ্যে একটি বিমানক্ষেত্র থেকে ১০ মার্চের মধ্যেই সেনা সরিয়ে নেওয়া হবে। ১০ মে-র মধ্যে বাকি দু’টি বিমানক্ষেত্র থেকেও সেনা প্রত্যাহার করা হবে।’ উভয় দেশই এই সিদ্ধান্তে সহমত বলেও জানিয়েছে মালদ্বীপ। তবে সূত্রের খবর, দ্বীপরাষ্ট্রটিতে থাকা ভারতীয় ও মালদ্বীপ প্রতিরক্ষা আধিকারিকদের সাহায্যের জন্যভারত দু’টি হেলিকপ্টার এবং একটি ডর্নিয়ার বিমান মোতায়েন রাখবে।
তবে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রকের বিবৃতি অনুযায়ী, ‘মালদ্বীপের জনগণকে মানবিক এবং চিকিৎসা পরিষেবা পৌঁছে দিতে ভারতীয় বিমানক্ষেত্রে সেনা কার্যকলাপ চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে পারস্পরিক ভাবে কয়েকটি সমাধানসূত্র বার করেছে উভয় দেশই। যদিও মালদ্বীপ থেকে সেনা প্রত্যাহারের কোনও উল্লেখ নেই বিদেশমন্ত্রকের বিবৃতিতে। দু’ দেশের মধ্যে পরবর্তী বৈঠক মালদ্বীপের রাজধানী মালেতে হবে বলেও জানিয়েছে বিদেশমন্ত্রক। বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে, ভারত ও মালদ্বীপ উভয দেশই পারস্পরিক সাহায্যের মাধ্যমে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পাশাপাশি দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক মজবুত করতে আলোচনাও চালিয়ে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *