অশনি সংকেতের মধ্যে কবিগুরু প্রণামে ইছামতী পার পেল‌ ওয়াইফাই সেলফি জোন

রবীন্দ্রজয়ন্তীর বিশেষ দিনে ইছামতী পাড়ে অবস্থিত রবীন্দ্র সৈকত পেল ওয়াইফাই সেলফি জোন। স্বভাবিকভাবেই খুশি বসিরহাটবাসী।নবরূপে রবীন্দ্র সৈকত উদ্বোধনে ছিলেন বিধায়ক পার্থ ভৌমিক, বসিরহাট তৃণমূল কংগ্রেসের সাংগঠনিক জেলার সভাপতি সরোজ বন্দ্যোপাধ্যায়, বসিরহাট দক্ষিণের বিধায়ক সপ্তর্ষি বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজ্য তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক সুরজিৎ মিত্র, বসিরহাট পুরসভার চেয়ারম্যান অদিতি মিত্র, বসিরহাট উত্তর বিধানসভা চেয়ারম্যান এটিএম আব্দুল্লাহ সহ বিশিষ্টজনেরা। ইছামতীর পাড়ে সেলফি জোনের ফিতে কেটে ২৫ শে বৈশাখের কবি গুরু প্রণাম এর মধ্য দিয়ে এই দিনটা পালন করল জনপ্রতিনিধি থেকে শুরু করে সাহিত্যিক কবি নাট্য ব্যক্তিত্বের থেকে বিশিষ্টজনেরা।

২৫ শে বৈশাখ মানে বাঙালির আবেগ আর আবেগ মানেই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। ১৬১ তম কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্ম দিনে, নতুন রূপে নতুন সাজলো বসিরহাটের ইছামতীর পাড়ের রবীন্দ্র সৈকত। এবার থেকে পর্যটকরা ইছামতী নদীর ধারে রবীন্দ্রনাথের পদতলে যে যার মতো সেলফি তুলতে পারবেন। তার জন্য একটি সীমারেখা তৈরি করা হয়েছে। বলা হয়েছে সেটা সেলফি জোন। পাশাপাশি সাংস্কৃতিক মুক্ত মঞ্চ যেখানে সংস্কৃতিপ্রেমী মানুষেরা নাচ গান কবিতা আবৃত্তির মধ্যে দিয়ে নিজেদের কলাকৌশল প্রতিভা তুলে ধরতে পারবেন।  যেখানে সমস্ত শ্রেনীর মানুষ তাদের বিনামূল্যে পরিষেবা পাবে। আর এই উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে দেখা গেল  কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সামনে থেকে বিভিন্ন ছাত্র-ছাত্রী যুবক-যুবতী থেকে বয়স্করা নিজেদের হাতে মোবাইল ফোন নিয়ে দেদার সেলফি তুলতে ব্যস্ত।  রবীন্দ্রনাথের ছবি নিজেদের ফ্রেমবন্দি করতে ব্যস্ত আট থেকে আশি সকলেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

14 − 2 =