‘আধার ইস্যুতে কেন্দ্রের চক্রান্ত রুখে দিলাম…’, ভাষা দিবসের মঞ্চ থেকে সোচ্চার মমতা

রাজ্য সরকারের নিরন্তর চাপের কাছে মাথা নোয়াতে বাধ্য হয়েছে কেন্দ্র। সেকারণেই রাজ্যে বাতিল হওয়া আধার কার্ড ফের সক্রিয় করা হচ্ছে। এদিন দক্ষিণ কলকাতার দেশপ্রিয় পার্কে ভাষা দিবসের অনুষ্ঠানে আধার বিভ্রাট নিয়ে সরব হয়ে এই দাবি করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপশি সাফ জানালেন, ‘আমরা আধারে বিশ্বাস করি না। ভোটের অঙ্কে বিশ্বাস করি না। বিশ্বাস করি মানবিকতায়। এটা রাজনীতির খেলা, ভোটের খেলা। আধার কার্ড নিয়ে যে জঘন্য চক্রান্ত হল, চক্রান্তটা আমরা রুখে দিলাম। কারণ, এটা বাংলা এটা বাংলা অন্য জায়গায় নয়। মাথায় রাখবেন। বাংলাই পারে এটা করে দেখাতে। আর কেউ পারবে না। আমরা আধার নিয়ে চক্রান্ত রুখে দিয়েছি। ব্যবস্থা নিয়েছি। সব মতুয়াদের আধার কার্ড ডি-অ্যাক্টিভেট করে দিয়েছে। কেন কেটে দিল আধার? কারণ ওরা বলে বিদেশি। ৫ বছর বাদে শুনতে হবে বিদেশি বিদেশি।’

বস্তুত আধার নিয়ে এদিন মুখ্যমন্ত্রী স্বল্প সময়ের মধ্যেই একদিকে যেমন প্রতিবাদ জানিয়েছেন তেমনি গুরুত্বপূর্ণ বার্তাও দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, এসব এন আর সি চালু করার প্ল্যান, ডিটেনশন ক্যাম্প করার প্ল্যান। সমস্ত মতুয়াদের কাছ থেকে আধার কার্ড নিষ্ক্রিয় করে দেওয়া হচ্ছে। কোন অধিকারে? একটা লোক জান পারল না তাঁর কী অপরাধ! তাঁর মানে প্রথমে আমি কাটলাম, তার মানে সে বিদেশি হয়ে গেল। তারপর পাঁচ বছর বাদে তাঁকে শুনতে হবে বিদেশি, বিদেশি, বিদেশি। একদম চিন্তা করবেন না, আমরা কার্ড দিয়ে দেব। হয় এটাকে বন্ধ করবে, আর না হলে, গরিব মানুষদের যে অধিকার তারা পাচ্ছিলেন, সেই অধিকার থেকে তাঁরা যাতে বঞ্চিত না হন, আমরা একটা ওয়েব পোর্টাল চালু করছি। যেটা সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীকে জানাবে। যাদের যাদের নাম কাটা হচ্ছে, তাঁদের আমরা একটা আলাদা কার্ড দেব। দু’একজন গজিয়ে উঠছে যারা বাংলাকে লাঞ্ছনা করছে, আমি তাঁদের বলে রাখি আগামী দিনে আপনারা ভাল থাকুন। আমরা মাথা নত করতে জানি না। আজ একটা প্রবণতা চলছে বাংলার সংস্কৃতিকে ছিন্ন বিচ্ছিন্ন করে। যে ভরসা যোগায়, বিশ্বাস যোগায়, সেই সংস্কৃতিকে লাঞ্ছনা করে কোনো কিছু একটা চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চলছে। তাই আমি বলব আজ শপথ নিন বাংলার এই চক্রান্তকে ছিন্ন বিচ্ছিন্ন করতে দেব না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *