ভোটের দিন ভারতকে বার্তা হাসিনার, বেলা বাড়তেই উত্তপ্ত বাংলাদেশ

বাংলাদেশে শুরু হয়েছে দ্বাদশ নির্বাচন প্রক্রিয়া। ভোটের দিনও হিংসা অব্যাহত বাংলাদেশে। রবিবার নির্বাচনী প্রক্রিয়া রুখে দেওয়ার ডাক দিয়েছিল বিএনপি-জামাত-সহ সমমনা দলগুলো। সেই মতো এদিন চট্টগ্রামে নগরীর চান্দগাঁও এলাকায় ভোটবিরোধী মিছিলে নামে বিএনপি। সেখানে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ান খালেদা জিয়ার দলের কর্মীরা। এই ঘটনায় জখম হন ১৫ জন। সংঘর্ষের পাশাপাশি অভিযোগ উঠেছে, মুন্সিগঞ্জে আওয়ামি লিগের প্রার্থীর এক সমর্থককে খুন করা হয়েছে।

এদিকে, ভোটের দিনই ভারতের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নেত্রী জানালেন, ভারত বাংলাদেশের বিশ্বাসী বন্ধু। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের মানুষকে ‘আশ্রয়’ দেওয়ার জন্যও নয়াদিল্লির কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। নির্বাচনের দিন ভারতের প্রতি বার্তা দিতে গিয়ে হাসিনা বলেছেন, ‘আমরা অত্যন্ত সৌভাগ্যবান। ভারত আদেরমা বিশ্বাসী বন্ধু। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময় ওরা আমাদের সমর্থন জুগিয়েছিল। ১৯৭৫ সালে যখন আমরা আমাদের গোটা পরিবারকে হারিয়েছিলাম ওরা আমাদের আশ্রয় দিয়েছিল। ভারতের জনগণের আমাদের শুভ কামনা রইল।’

চট্টগ্রামের ১৬টি আসনে সকাল আটটা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। নগরীর ভোটকেন্দ্রগুলোতে সকালের দিকে ভোটারের উপস্থিতি কম ছিল। উপজেলার কেন্দ্রগুলোর মধ্যে কয়েকটিতে সকাল থেকে ভোটারের লাইন দেখা গিয়েছে। দ্বাদশ নির্বাচনের দিন ৪৮ ঘণ্টার বন্‌ধ পালন করছে ভোট বর্জন করা বিএনপি। ভোটারদের কেন্দ্রে না যাওয়ারও আহ্বান জানিয়ে তারা।

জানা গিয়েছে, এদিন ভোটগ্রহণ শুরুর পর চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁও থানার শরাফত উল্লাহ পেট্রোল পাম্পের সামনে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এদিন নির্বাচনী হিংসায় ঝরেছে রক্ত। ঘটনাস্থল মুন্সিগঞ্জ-৩ (সদর ও গজারিয়া) আসন। ভোটকেন্দ্রের পাশেই আওয়ামি লিগের প্রার্থী মৃণালকান্তি দাসের এক সমর্থককে কুপিয়ে খুন করা হয় বলে খবর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *