ক্যাচ ফেলায় শামিকে মাঠের মধ্যেই গালাগালি হার্দিকের, নিন্দার ঝড় নেটিজেনদের

চলতি আইপিএলে প্রথম হারের মুখ দেখল গুজরাট টাইটান্স। হাফসেঞ্চুরি করেও মেজাজ হারালেন অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ডিয়া। তারকা পেসার মহম্মদ শামিকে গালাগালি দিয়েছেন হার্দিক, এমন দৃশ্যও দেখা গিয়েছে সোমবারের ম্যাচে। হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে ৮ উইকেটে ম্যাচ হারে গুজরাট। হার্দিকের বলে রাহুল ত্রিপাঠি ক্যাচ তোলেন। সেই ক্যাচ ধরতে না পারায় শামির উপর রেগে গিয়ে গালাগালি দেন হার্দিক। এই ঘটনায় সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে হার্দিকের নিন্দায় সরব হন ক্রিকেটপ্রেমীরা।

ঘটনাটি ঘটে হায়দরাবাদ ইনিংসের ১৩তম ওভারে। হার্দিককে পরপর দুই বলে দুটি ছয় মারেন হায়দরাবাদ অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। তখনই হার্দিকের চোখে মুখে বিরক্তি দেখা যাচ্ছিল। এরপরেই ওভারের শেষ বলে রাহুল ত্রিপাঠির ক্যাচ ছাড়েন শামি। এগিয়ে এসে ক্যাচ ধরার পরিবর্তে তিনি বাউন্ডারি লাইনের দিকে সরে গিয়ে রান বাঁচানোর চেষ্টা করেন। তাতেই ক্ষিপ্ত হন হার্দিক। ক্রিকেটভক্তরা উইলিয়ামসনের সঙ্গে হার্দিকের তুলনা টেনে বলেন, ক্যাচ ছাড়া সত্ত্বেও উইলিয়ামসন কারওর উপরই রাগ দেখাননি। সেখানে হার্দিকের আচরণ অবশ্যই নিন্দাজনক।

এছাড়াও ব্যাটিং চলাকালীন মেজাজ হারান হার্দিক। তরুণ পেসার উমরান মালিকের বল আছড়ে পড়ে হার্দিকের হেলমেটে। আঘাত পেয়ে পড়ে যান তিনি। মাঠে ফিজিও এসে তাঁর শুশ্রূষা করেন। এই ঘটনার ফলে উমরানের উপরেও মেজাজ হারান হার্দিক। প্রসঙ্গত, এখনও পর্যন্ত আইপিএলের দ্রুততম বলের মালিক উমরান। গুজরাটের বিরুদ্ধে ১৫৩.৩ কিমি প্রতি ঘণ্টা গতিবেগে বল করেন তিনি। ম্যাচ শেষে উমরানের ঘটনা নিয়ে মুখ খুলেছেন হার্দিকও। তিনি বলেছেন, “আমি উমরানকে সম্মান করেই বলছি, একজন জুনিয়রকে আমি তো ছেড়ে দিতে পারি না। বিশেষত বাউন্সার দিয়ে হেলমেটে মারার পর।” তবে এই বলটিই তাঁকে তাতিয়ে দিয়েছিল বলে জানিয়েছেন হার্দিক।

তবে শামির প্রতি হার্দিকের আচরণ নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠেছে। সতীর্থের প্রতি মাঠের মধ্যে এহেন আচরণ করা উচিত হয়নি হার্দিকের, এমনটাই মত নেটিজেনদের। অনেকেই মনে করিয়ে দিয়েছেন হার্দিকের দাদা ক্রুণাল পাণ্ডিয়ার সঙ্গে বরোদা টিমের সতীর্থ দীপক হুডার প্রতি দুর্ব্যবহারের কথা। কোনও দলের অধিনায়ক হওয়ার যোগ্যতা নেই হার্দিকের, এমন বলেছেন অনেকেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

5 × five =