৩০ হাজারে নাতনিকে বিক্রি করলেন দাদু! আনন্দপুরে সক্রিয় শিশুপাচার চক্র

মায়ের কোল থেকে চুরি মাত্র ২৮ দিনের কন্যাসন্তান! সদ্যোজাতকে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তার দাদুর বিরুদ্ধেই। ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে ওই শিশু সন্তানকে বিক্রি করা হয়েছে বলে জেরায় জানতে পেরেছে পুলিশ। ঘটনাটি আনন্দপুর এলাকার। শেষে অবশ্য সদ্যোজাতকে উদ্ধার করা হয়।
ঘটনার তদন্তে নেমে এখনও পর্যন্ত ৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাদের মধ্যে তিনজনই মিডলম্যান বা দালাল! বুধবার রাতে আনন্দপুর থানায় এসে এক তরুণী অভিযোগ করেন, যে তাঁর ২৮ দিনের মেয়েকে কোথাও খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। নিখোঁজ ডায়েরিও করা হয়। তারপরই তৎপরতার সঙ্গে পুলিশ ওই শিশুর খোঁজ শুরু করে। সেইসঙ্গে শিশুর বাড়ির লোকজনকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জেরার সময় ওই শিশু-কন্যার দাদুর কথায় অসঙ্গতি লক্ষ করে পুলিশ। বুঝতে পারে, শিশুটিকে কোথাও বিক্রি করে দেওয়া হয়েছে। আর এই ব্যাপারে জড়িত অভিযোগকারিণীর বাবা ও সৎ মা। শেষ পর্যন্ত পুলিশি জেরার মুখে ভেঙে পড়ে তারা। পুলিশকে জানায়, ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে নাতনিকে বিক্রি করে দিয়েছে।

জানা যায়, মাত্র ৩০ হাজার টাকার নিজের নাতনিকে বিক্রি করে দিয়েছেন দাদু চুন্নু দাস ও সৎ দিদিমা অলকা সর্দার। ওই এলাকারই বাসিন্দা শিখা মুখোপাধ্যায় ও পূর্ণিমা মণ্ডল শিশু পাচার চক্রে জড়িত। টাকার বিনিময়ে তাঁরাই নিঃসন্তান দম্পতিদের হাতে তুলে দিতেন সদ্যোজাতদের। এক্ষেত্রে তাঁরাই ফাঁদ পেতেছিলেন। টাকার বিনিময়ে ওই শিশুকন্যাকে এই দুই মহিলাই নরেন্দ্রপুরের বাসিন্দা চৈতালি চক্রবর্তীর হাতে তুলে দেন।  বুধবার অভিযোগ দায়ের হওয়ার কয়েকঘণ্টার মধ্যেই চৈতালির বাড়ি থেকে সদ্যোজাতকে উদ্ধার করে আনন্দপুর থানার পুলিশ।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *