গেঁটে বাতে জেরবার! ঘরোয়া টোটকায় হবে কাজ

সবে ত্রিশ পার করেছে তৃষা।এরই মধ্যে গাঁটে গাঁটে ব্যথা। সেদিন তো অফিস যাওয়ার জন্য উঠতেই পারছিল না। বুড়ো আঙুল হঠাত্ ফুলে গিয়ে গাঁটের কাছে ভীষণ ব্যথা। ডাক্তারের কাছে গিয়ে পরীক্ষা করে জানা গেল ইউরিক অ্যাসিড বেড়েছে।

গেঁটে বাতের (Gout) সমস্যায় এখন আর বয়স্করা নন, ভুগছেন কম বয়সীরাও।

কী থেকে হয় এই সমস্যা?

আসলে বাত বা জয়েন্টে ব্যথার মতো সমস্যার কারণ হল শরীরে ইউরিক অ্যাসিডের (Uric Acid)মাত্রা বেড়ে যাওয়া। পিউরিন ভেঙে ইউরিক অ্যাসিড তৈরি হয়। পিউরিন ডিএনএ সিস্থেসিস, হজম, খাদ্য দ্রব্য থেকে পুষ্টিশোষণে সাহায্য করে।পিউরিন ভেঙে তৈরি হওয়া ইউরিক অ্যাসিড রক্তের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়ে কিডনিতে গিয়ে পৌঁছয়। সাধারণত প্রস্রাবের সঙ্গে তা বের হয়ে যায়। তবে কখনও কখনও এটি সম্পূর্ণরূপে শরীরের জমা হতে শুরু করে। যার কারণে হাড় ও জয়েন্টে ব্যথা-যন্ত্রণা শুরু হয়।

কেন হয় এই সমস্যা?

এর কোনও সুনির্দিষ্ট কারণ নেই। তবে বংশগত ইতিহাস থাকলে, অনিয়ন্ত্রিত জীবনাপন, অতিরিক্ত মদ্যপান, রেড মিট বা পিউরিন সমৃদ্ধ খাবার অতিরিক্ত খেলে সমস্যা দেখা দিতে পারে। পাশাপাশি বয়স ও অতিরিক্ত ওজনও গেঁটে বাতের সমস্যা বাড়ায়।

এর আবার বিভিন্ন ধরন আছে।

অ্যাসিম্পটোমেটিক হাইপার ইউরিসেমিয়া-এক্ষেত্রে রক্তে ইউরিক অ্যাসিডের মাত্রা বেশি থাকে, কিন্তু বিশেষ সমস্যা থাকে না।

অ্যাকিউট গাউট-এই স্টেজে ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে যাওয়ায় গাঁটে ব্যথা, ফুলে যাওয়ার মতো সমস্যা দেখা যায়।

ইন্টারভ্যাল গাউট- অ্যাকিউট গাউটের পর অনেক সময় হঠাত্ ব্যথা কমে যায় বা হয়ই না। একেই বলে ইন্টারভ্যাল গাউট।

ক্রনিক গাউট- যখন ইউরিক অ্যাসিড বেড়ে যাওয়ায় গাঁটের ব্যথা দীর্ঘস্থায়ী হয়, বারবার হয় তখন তাকে ক্রনিক গাউট বলে।

গেঁটে বাত থেকে বাঁচতে খান এই বিশেষ পানীয়।২ চিমটে জোয়ান, ১টি ছোট শসা, অর্ধেক লেবু ও ছোট সাইজের আদা

কীভাবে বানাবেন

প্রথমে সব উপকরণ ভাল করে ধুয়ে নিন। এরপর শসা টুকরো করে কেটে নিন। লেবুও টুকরো করে নিন। আদার খোসা ছাড়িয়ে টুকরো করে কেটে নিন। এবার সমস্ত উপকরণগুলি ভাল করে ব্লেন্ড করে নিন। জোয়ান যোগ করে তাতে কিছু পরিমাণ জল দিন।

ব্লেন্ড হয়ে গেলে একটি গ্লাসে রস ঢেলে নিন। চাইলে আপনি সামান্য নুন মেশাতে পারেন। তাজা অবস্থাতেই খাবার চেষ্টা করুন।

মৌরির জল

এছাড়া ব্যাথা কমাতে মৌরির জল কিন্তু খুব উপকারি। সারারাত মৌরি ভিজিয়ে সকালে ছেঁকে ওই জল পান করুন। পেট ঠান্ডা থাকার পাশাপাশি ব্যথা কমাতে পারে মৌরি।

রসুন-সকালে রসুনের দুটো কোয়া চিবিয়ে জল খান। রসুন শরীর থেকে অতিরিক্ত ইউরিক অ্যাসিড বের করতে সাহায্য করবে।

 

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

nineteen − 15 =