গৌরীপুর জুটমিল খোলা নিয়ে বিপন্ন শ্রমিকদের ভাঁওতা দেওয়া হয়েছে: অর্জুন সিং

ব্যারাকপুর : বহু বছর ধরে বন্ধ আয়তনে দেশের সবচেয়ে বড় নৈহাটির গৌরীপুর জুটমিল। লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে গৌরীপুর জুটমিল খোলার ব্যাপারে আশ্বাস দিয়েছিল রাজ্য সরকার। মিলটি খোলার উদ্যোগ নিয়েছিলেন স্থানীয় বিধায়ক তথা তৃণমূল প্রার্থী পার্থ ভৌমিক। এমনকী কয়েকদিন আগে বন্ধ মিলের গেটে রং-ও করা হয়েছে। কিন্তু ভগ্নাবশেষ অবস্থায় পড়ে থাকা মিলটিতে তারপর রক্ষণাবেক্ষণের কাজ শুরু হয়নি। ভোটের মুখে মিল না খোলায় বেজায় ক্ষুব্ধ শ্রমিক মহল্লার মানুষজন। এই বন্ধ মিল নিয়ে শ্রমিক নেতা তথা সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, গৌরীপুর জুটমিল চালু নিয়ে শ্রমিকদের সঙ্গে ভাঁওতাবাজি করা হয়েছে। গৌরীপুর শিল্পতালুক আজ শ্মশানে পরিণত হয়েছে।

তৃণমূল প্রার্থীকে নিশানা করে সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, পার্থ ভৌমিক সবসময় ডুয়েল গেম খেলেন। ব্যারাকপুরের মানুষ এবার এর জবাব দেবে। সাংসদের অভিযোগ, নৈহাটির অরবিন্দ রোডের বড়মা কমিটি জোর করে দখল করে নেওয়া হয়েছে। অরবিন্দ রোডের হকার ভাইদের অবস্থা অত্যন্ত শোচনীয়। হকার ভাইরা না খেয়ে মরছে। সাংসদের দাবি, এবার পার্থ ভৌমিকের সিন্ডিকেটরাজ খতম করতে হবে। ভোট পরবর্তী হিংসার নায়ক পার্থ ভৌমিক ও জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। সিবিআই ওই দু’জনের নামে এফআইআর করেছিল। ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনার তদন্তও চলছে। তৃণমূল প্রার্থী পার্থ ভৌমিক এক লক্ষ থেকে দেড় লক্ষ ভোটে জেতার দাবি করেছেন নৈহাটির তৃণমূল সভাপতি সনৎ দে।

এ প্রসঙ্গে সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, ২০১৯ সালে ব্যারাকপুর থেকে বিজেপি জিতেছিল। এবারও বিজেপি জিতবে। সাংসদের কথায়, ২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে দু’লক্ষ ভোটে জেতার দাবি করেছিল তৃণমূল। কিন্তু সেবার বিজেপির কাছে ওদের হারতে হয়েছিল। তবে সাংসদকে এই মুহূর্তে কিছুই বলতে চাইছেন না ব্যারাকপুর কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী পার্থ ভৌমিক। বুধবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তৃণমূল প্রার্থী পার্থ ভৌমিক বলেন, ‘আমার বন্ধু ভালো থাকুক।’ ব্যস, আর কিছুই তিনি মন্তব্য করতে চাননি। আসন্ন লোকসভা নির্বাচন নিয়ে তাঁর মন্তব্য, জমিদারী কায়দার বিরুদ্ধে হবে গরিব মানুষের লড়াই। সেই লড়াইতে তিনি জয়ী হবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *