ইউক্রেনে প্রথমবার হাইপারসনিক মিসাইল হামলা

২৪ দিনে পা দিল রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ (Russia-Ukraine War)। বারবার বৈঠক করেও মিলছে না রফাসূত্র। এমন আবহে হামলার ঝাঁজ আরও বাড়াচ্ছে মস্কো। এমন আবহে শুক্রবার ইউক্রেনে হাইপারসনিক মিসাইল (Hypersonic Missile) হামলা চালাল পুতিনের দেশ। যা যুদ্ধের আবহে এই প্রথমবার।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের (Russia Defence Ministry)  তরফে জানানো হয়েছে, ইভানো-ফ্রানকিভিস্ক এলাকায় মাটির তলায় বিপুল অস্ত্রসম্ভার ছিল ইউক্রেনের। পালটা হামলা চালাতে প্রচুর মিসাইল জড়ো করা হয়েছিল সেখানে। এবার সেই অস্ত্রসম্ভারেই সরাসরি হামলা চালাল রাশিয়া। ছোঁড়া হয় হাইপারসনিক ব্যালেস্টিক মিসাইল ‘কিনঝল’ (Kinzhal Missile)।

ইউক্রেনে এই হামলার কথা স্বীকার করে নিয়েছে রাশিয়া। ইতিপূর্বে কোনও সামরিক অভিযান বা যুদ্ধে রাশিয়ার এই অত্যাধুনিক হাইপারসোনিক ব্যালেস্টিক মিসাইল ব্যবহারের কথা শোনা যায়নি। হাইপারসোনিক মিসাইল ব্যবহারের কথা এতদিন রাশিয়ার তরফে স্বীকারও করা হত না। কিন্তু এবার ভলোদিমির জেলেনস্কির দেশের উপর চাপ বাড়াতে অত্যাধুনিক এই অস্ত্র ব্যবহার করলেন মরিয়া পুতিন (Russia President Vladimir Putin)।

রুশ হামলায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে পুরো ইউক্রেন। এই যুদ্ধে গোলাবর্ষণের পাশাপাশি বিভিন্ন ধরনের ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে যাচ্ছে রুশ সেনারা। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা আরআইএ নভোস্তির খবরে বলা হয় রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, ওই ক্ষেপণাস্ত্রের আঘাতে ইভানো-ফ্রাঙ্কিভস্ক অঞ্চলের দেলিয়াতিন গ্রামে ক্ষেপণাস্ত্র ও বিমানের গোলাবারুদ ভরা একটি বিশাল ভূগর্ভস্থ গুদাম ধ্বংস হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 × one =