নথিপত্রবিহীন দোকানে চোরাই টিএমটি বার কারবারের অভিযোগ, দোকানে হানায় হাতেনাতে পাকড়াও

নিজস্ব প্রতিবেদন, বাঁকুড়া: সংস্থার কারখানা থেকে নির্দিষ্ট স্টক পয়েন্টে যাওয়ার পথে টন টন টিএমটি বার গায়েব হয়ে যাচ্ছিল বলে অভিযোগ। ঘটনার তদন্তে নেমে বাঁকুড়ার মল্লেশ্বর ™ল্লি এলাকার একটি দোকানে হানা দিল টিএমটি বার প্রস্তুতকারী একটি সংস্থার আধিকারিকরা। দোকানদার তাঁর দোকানে মজুত টিএমটি বারের কোনও বৈধ নথি দেখাতে না পারায় খবর দেওয়া হয় বাঁকুড়া সদর থানার পুলিশকে। পুলিশ ঘটনাস্থলে হাজির হয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করে।
জানা গিয়েছে, একটি নামী টিএমটি বার তৈরির কারখানা থেকে নির্দিষ্ট স্টক পয়েন্টে টিএমটি বার নিয়ে যাওয়ার পথে রাস্তাতেই টন টন টিএমটি বার হাওয়া হয়ে যাচ্ছিল বলে অভিযোগ। বিষয়টি নজরে আসতেই নড়েচড়ে বসে ওই সংস্থার আধিকারিকরা। দাবি, তদন্ত শুরু হতেই আধিকারিকরা জানতে পারেন টিএমটি বার লরিতে করে নিয়ে যাওয়ার পথে বিভিন্ন ধাবায় তার একাংশ নামিয়ে দেওয়া হচ্ছে। রাস্তাতেই নামিয়ে দেওয়া সেই চোরাই টিএমটি বার চলে আসছে বাঁকুড়ার মল্লেশ্বর পল্লির একটি দোকানে। সেখান থেকেই অত্যন্ত কমদামে বিক্রি হয়ে যাচ্ছিল টনটন টিএমটি বার। ফলে একদিকে যেমন লক্ষ লক্ষ টাকা জিএসটি লোকসান হচ্ছিল, তেমনই নির্দিষ্ট ওই সংস্থার বদনাম হচ্ছিল।
ঘটনার তদন্তে নেমে মল্লেশ্বর পল্লির ওই দোকানের খোঁজ পেতেই সোমবার সেখানে হানা দেন টিএমটি বার প্রস্তুতকারী সংস্থার আধিকারিকরা। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে চোরাই টিএমটি বারের ওই ব্যাবসায়ীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। হাতেনাতে ধরা পড়ে যাওয়া দোকানদারের দাবি, চোরাই টিএমটি বার নয়, তিনি বড় একটি দোকান থেকে কম কম করে টিএমটি বার কিনে এনে তা সরবরাহ করে থাকেন। বড় দোকানদার তাঁকে জিএসটি বিল না দেওয়াতেই তিনি এদিন তা দেখাতে পারেননি সংস্থার আধিকারিকদের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *