বেআইনি দখলদারির অভিযোগ দক্ষিণ শহরতলির ‘বড়বাজারে’!

নিজস্ব প্রতিবেদন, আমতলা: দক্ষিণ শহরতলির বৃহৎ বাণিজ্য কেন্দ্র বিষ্ণুপুর থানার আমতলা বাজারকে জেলার পাইকারি ব্যবসায়ীরা দক্ষিণের ‘বড়বাজার’ বলে মনে করেন। এই বাজারে ছোট বড় মিলিয়ে পাঁচ হাজারের ওপর ব্যবসায়ী প্রাত্যহিক লেনদেন করেন। কিন্তু অভিযোগ, এই বাজারের আয়তন ও পরিধি এত বৃহৎ হওয়া সত্ত্বেও এর ন্যূনতম পরিকাঠামো ঠিক নেই। এই বিষয়টা নিয়ে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী মহলে যথেষ্ট ক্ষোভ আছে।
আমতলা বাজারের এক পাইকারি ব্যবসায়ী স্বপন সেনাপতির দাবি, এই বাজার পরিচালন ও নিয়ন্ত্রণ করার কোনও ব্যবস্থা নেই। নামকাওয়াস্তে একটা ব্যবসায়ী সমিতি আছে বটে, কিন্তু বাজার পরিচালন ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে এই সমিতির কোনও ভূমিকাই নেই। তাঁর অভিযোগ, ‘আমাদের বাজারে প্রাত্যহিক যে বিপুল পরিমাণে আবর্জনার স্তূপ জমা হয়, তার অপসারণের কোনও ব্যবস্থা নেই। নিকাশি নালা পরিষ্কার করা হয় না। ফলত একটু বৃষ্টিতেই সারা বাজার জলে থই থই করে।’ পাশে দাঁড়িয়ে থাকা আর এক ব্যবসায়ীর দাবি, সরকারি ক্ষেত্রেও এই বাজার পরিচালন ও নিয়ন্ত্রণ করার ওপর কোনও নজরদারি নেই।
স্থানীয় পঞ্চায়েত এই বাজার নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামায় না বলেও অভিযোগ। যদিও বাজারের এক ব্যবসায়ী শ্যামল দোলুই দাবি করেন, পঞ্চায়েত ব্যবস্থায় সুনির্দিষ্ট ভাবে এই সমস্ত বাজারগুলো নিয়ন্ত্রণ, রক্ষণাবেক্ষণ ও উন্নতিকরণের সমস্ত দায়িত্ব তাদের ওপর দেওয়া আছে। তথাপি তারা সেই দায়িত্ব পালন করেন না। অভিযোগ, বাজারের প্রধান প্রবেশদ্বারের পাশে আমতলা সর্বজনীন কালী মন্দির পার হলেই রাস্তা আর খুঁজে পাওয়া যাবে না, সমস্তটাই চলে গিয়েছে বেআইনি দখলদার বা হকারদের অধিকারে। অত্যন্ত বিশৃঙ্খল অবস্থায় ফুটপাথের ওপর ছড়িয়ে ছিটিয়ে ব্যবসার পসরা সাজিয়ে বসে রয়েছেন। কোনও নিয়ম নীতির বালাই নেই। এক পথচারীর দাবি, কয়েকদিন আগে পুলিশ প্রশাসন এই বেআইনি দখলদারীদের সরিয়ে দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেছিল। কিন্তু রাজনৈতিক দলাদলির মধ্যে পড়ে সে উদ্যোগ অংকুরেই বিনষ্ট হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *