কোচ ছাড়াই বিশাল জয় ইস্টবেঙ্গলের, অ্যাওয়ে ম্যাচে কেরল বধ

দীর্ঘ বিরতির পর ইন্ডিয়ান সুপার লিগে নেমেছিল ইস্টবেঙ্গল। কেরলের বিরুদ্ধে অ্যাওয়ে ম্যাচে একঝাঁক নেইয়ের গল্প ইস্টবেঙ্গল শিবিরে। কার্ড সমস্যায় এই ম্যাচে বেঞ্চে থাকতে পারেননি হেড কোচ কার্লেস কুয়াদ্রাত। কোচের অনুপস্থিতি যেন বাড়তি তাগিদ হয়ে দেখা দিয়েছিল লাল-হলুদ শিবিরে। টিমের কাছে এটি অ্যাওয়ে ম্যাচ হলেও দায়িত্বে থাকা কোচ বিনো জর্জের ‘হোম’ ম্যাচ। হেড কোচের অনুপস্থিতিতে ফুল পয়েন্ট নিয়েই মাঠ ছাড়ল বিনো জর্জের টিম।

কোচিতে ইস্টবেঙ্গলের শুরুটা যদিও হতাশায় হয়েছিল। ২৩ মিনিটে ফেডর কার্নিচের গোলে এগিয়ে যায় কেরালা ব্লাস্টার্স। প্রথমার্ধর শেষ মুহূর্ত রেড কার্ড কেরালার জিকসন সিংকে। প্রথমার্ধের অ্যাডেড টাইমে পেনাল্টি থেকে গোল শোধ করে ইস্টবেঙ্গল। গোলটি সাউল ক্রেসপোর। রুদ্ধশ্বাস একটা ম্যাচের তখনও বাকি ছিল। ১-১ স্কোর লাইনেই দু-দল বিরতিতে যায়। ম্যাচের শেষ মুহূর্তে একের পর এক নাটকীয় মুহূর্ত।

প্রথমার্ধে জিকসন রেড কার্ড দেখায় ১০ জনে পরিণত হয়েছিল কেরালা ব্লাস্টার্স। ৭১ মিনিটে সাউল ক্রেসপোর আরও একটি গোলে লিড নেয় ইস্টবেঙ্গল। ম্যাচের ৭৪ মিনিটে নাওচা সিং রেড কার্ড। ৯ জনের কেরলের বিরুদ্ধে ফের সাময়িক চাপে পড়ে ইস্টবেঙ্গল। ৮২ মিনিটে নাওরেম মহেশ সিংয়ের গোলে ইস্টবেঙ্গল লিড বাড়ায়। যদিও ২ মিনিটের ব্যবধানে হিজাজির আত্মঘাতী গোলে কেরল ২-৩ করে। নির্ধারিত সময়ের ৩ মিনিট আগে নিজের দ্বিতীয় এবং টিমের চতুর্থ গোল নাওরেম মহেশের।

ইস্টবেঙ্গল শিবিরে স্বস্তির আরও একটা কারণ হতে পারে, গোলের সুযোগ তৈরি। সব মিলিয়ে ৮টি শট টার্গেটে রেখেছিল ইস্টবেঙ্গল। ৪-২ গোলে জয়, মরসুমের বাকি ম্যাচের আগে আত্মবিশ্বাস বাড়াবে লাল-হলুদ শিবিরে। এ দিন আইএসএলে কেরিয়ারের শততম ম্যাচ খেলেন ইস্টবেঙ্গল ডিফেন্ডার নীশু কুমার। তাঁকে ১০০ নম্বর লেখা বিশেষ লাল-হলুদ জার্সি দেওয়া হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

3 + 17 =