রঞ্জিতে ঘরের মাঠেও ফুল পয়েন্ট পেল না বাংলা

রঞ্জি ট্রফিতে এ বারের মরসুমে ঘরের মাঠে প্রথম ম্যাচ। টপ অর্ডার ব্যর্থতার পর বাংলার ভিলেন হয়ে দাঁড়াচ্ছে আবহাওয়া। যার ফলে এই ম্যাচ থেকেও ফুল পয়েন্টের সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। মরসুমের প্রথম দুটি অ্যাওয়ে ম্যাচ খেলেছে বাংলা। বিশাখাপত্তনমে অন্ধ্র প্রদেশের বিরুদ্ধে তিন পয়েন্টের সম্ভাবনা উজ্জ্বল ছিল। শেষ অবধি বাংলার ঝুলিতে এসেছিল মাত্র ১ পয়েন্ট। দ্বিতীয় ম্যাচে কানপুরের গ্রিন পার্কে বোলারদের সৌজন্যে দারুণ জায়গায় ছিল বাংলা। আবহাওয়া বাধা হয়ে না দাঁড়ালে ৬ পয়েন্ট নিয়েও ফিরতে পারত। যদিও ৩ পয়েন্টেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল উত্তরপ্রদেশের বিরুদ্ধে। ঘরের মাঠেও পরিস্থিতি স্বস্তির নয়। ঘরের মাঠে এ মরসুমে বাংলার প্রথম প্রতিপক্ষ ছত্তীসগঢ়। টস জিতে বাংলাকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন প্রতিপক্ষ অধিনায়ক অমনদীপ খাড়ে। এই গ্রুপে বাংলার সবচেয়ে সহজ প্রতিপক্ষ বলা যেতে পারে ছত্তীসগঢ়কেই। তাদের বিরুদ্ধে ব্যর্থ বাংলার টপ অর্ডার। অভিজ্ঞ অনুষ্টুপ মজুমদার এবং তরুণ কিপার ব্যাটার অভিষেক পোড়েলের সৌজন্যে বড় স্কোর গড়ে বাংলা। প্রথম শ্রেনির ক্রিকেটে সেঞ্চুরির খাতা খোলেন অভিষেক পোড়েল। লোয়ার অর্ডারও দুর্দান্ত সহযোগিতা করে। ৮ উইকেটে ৩৮১ স্কোরে ইনিংস ঘোষণা করে বাংলা। ম্যাচের প্রথম দু-দিনই পুরো ওভার খেলা হয়নি। ফলে বাংলার ওপর চাপ বাড়তে থাকতে। মন্দ আলোয় তৃতীয় দিন অস্বস্তি আরও বাড়ে। সকাল থেকে শুধুই অপেক্ষা। শেষ অবধি মাত্র ৯ ওভার খেলা হল তৃতীয় দিন। এতেও বাংলার অস্বস্তি কমছিল না। অবশেষে সপ্তম ওভারে প্রথম ধাক্কা সুরজ সিন্ধু জয়সওয়ালের সৌজন্যে। গত ম্যাচেই রঞ্জি অভিষেক হয়ে সুরজের। এই ম্যাচে ব্যাট হাতে অবদান রাখার পর বোলিংয়েও প্রথম উইকেট তাঁর সৌজন্যেই। পরের ওভারেই স্পিনার করণ লালের দখলে আরও একটা উইকেট। ২৩ রানে ২ উইকেট হারায় ছত্তীসগঢ়। দিনের শেষে ২ উইকেটে তাদের স্কোর ২৭ রান। চতুর্থ দিনও পুরো ওভার খেলা হবে কিনা নিশ্চয়তা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *