বিহারের ভাগলপুরে তীব্র বিস্ফোরণে উড়ল বাড়ি, মৃত্যু শিশু-সহ ১২ জনের,জখম বেশ কয়েকজন

 

বিহারের ভাগলপুর জেলায় তীব্র বিস্ফোরণে (Blast) ধ্বংসস্তূপে পরিণত হল ২-৩টি বাড়ি। বিস্ফোরণে মৃত্যু হয়েছে ১২ জনের, এছাড়াও বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাতে ভাগলপুর (Bhagalpur) জেলার তাতারপুর থানার অন্তর্গত কাজভালিচক এলাকায় একটি তিন-তলা বাড়িতে জোরালো শব্দে বিস্ফোরণ হয়। বিস্ফোরণ এতটাই জোরালো ছিল যে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয় ওই বাড়িটি। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ওই বাড়ি সংলগ্ন আরও দুই-তিনটি বাড়ি। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ এই বিস্ফোরণ হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

এই ঘটনার পর টুইট করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)। উদ্ধারকাজ যাতে দ্রুত চালানো হয়, সেই বার্তা দিয়েছেন মোদি। এই প্রসঙ্গে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের (Nitish Kumar) সঙ্গে কথাও বলেছেন তিনি।

কাজভালিচক এলাকায় একটি অনাথ আশ্রমের ১০০ মিটারেরও কম দূরত্বে অবস্থিত একটি বাড়িতে রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ বিস্ফোরণ হয়। বিস্ফোরণের খবর পাওয়া মাত্রই ঘটনাস্থলে পৌঁছয় তাতারপুর থানার পুলিশ। পুলিশ কর্মীরা গিয়ে দেখেন, যে বাড়িতে বিস্ফোরণ হয়েছে সেই বাড়িটি একেবারে ধুলোয় মিশে গিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সংলগ্ন আরও দুই-তিনটি বাড়ি। ভাগলপুরের ডিএম সুব্রত কুমার সেন জানিয়েছেন, ‘প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে ওই পরিবার অবৈধভাবে আতসবাজি তৈরি করত। দুই থেকে তিনটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের, তদন্ত শুরু হয়েছে।’

পিঙ্কি কুমার নামে এক স্থানীয় বাসিন্দা জানিয়েছেন, তাঁর পরিবারের দুই সদস্যেরও মৃত্যু হয়েছে বিস্ফোরণের জেরে। আতিশবাজের বাড়ি ভেঙে পড়ে তাঁদের বাড়ির ওপর। ডেপুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল সুজিত কুমার জানিয়েছেন, প্রাথমিক তদন্তে দেখা গিয়েছে, অবৈধভাবে বাজি কারখানা চালাচ্ছিলেন নবীন আতিশবাজ। তাঁর বাড়িতে মজুত ছিল প্রচুর বিস্ফোরক।

মাঝরাতে কয়েক কিলোমিটার পর্যন্ত বিকট শব্দ শোনা যায়। কেঁপে ওঠে মাটি। ঘুমন্ত অবস্থায় ছিলেন প্রতিবেশীদের অনেকে। তাঁরা গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁদের বেশ কয়েকজনের শারীরিক পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক বলে খবর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

eighteen + seven =