উত্তরপ্রদেশে ফের দলিত কন্যার শ্লীলতাহানির চেষ্টা, বাধা দিতে ফেলে দেওয়া হল ফুটন্ত আখের রসে

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বা তাঁর প্রশাসন নিজের রাজ্যের প্রশাসন নিয়ে যে দাবিই করুন না কেন, উত্তরপ্রদেশে দলিত কন্যাদের ওপর নির্যাতনের ঘটনাতে কোনও ভাবেই রাশ পরানো যাচ্ছে না। এবার উত্তরপ্রদেশের বাগপতে ফুটন্ত আখের রসের কড়াই ছুড়ে ফেলা হল এক দলিত কন্যাকে।

সূত্রে খবর, আখের রস ফোটানোর সময় কড়াইয়ে হাতা নাড়ছিলেন ১৮ বছরের যুবতী। হঠাৎ পিছন থেকে তাঁকে জাপটে ধরে শ্লীলতাহানির চেষ্টা করা হয়। তখনই বাধা দিতে গেলেই ঘটে ভয়ঙ্কর পরিণতি। ধাক্কা মেরে  ফুটন্ত কড়াইয়ে ফেলে দেওয়া হয় যুবতীকে। এতে গুরুতর জখম হন ওই যুবতী। সূত্রে খবর, তাঁর শরীরের প্রায় ৬০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, উত্তর প্রদেশের বাগপত জেলায় একটি গুড় তৈরির কারখানায় কাজ করত ১৮ বছরের দলিত যুবতী। রবিবার ওই যুবতী কারখানায় কাজ করছিলেন। হঠাৎ কারখানার মালিক প্রমোদ যুবতীর উপরে চড়াও হয়। যুবতীকে যৌন হেনস্থা করার চেষ্টা করে। কারখানার মালিককে এই কাজে মদত দেয় রাজু ও সন্দীপ নামক কারখানার দুই শ্রমিক। যুবতী বাধা দিলে আরও জোর করে অভিযুক্তরা। সম্মান বাঁচাতে চিৎকার করতে থাকে যুবতী। এরপরই অভিযুক্তরা ওই যুবতীকে ফুটন্ত আখের রসের মধ্যে ফেলে দেয়। পরে কারখানার অন্য শ্রমিকরা ওই যুবতীকে কড়াই থেকে উদ্ধার করে। খবর দেওয়া হয় তাঁর বাড়িতেও। যুবতীর দাদা এসে তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যায়।  পরে সেখান থেকে দিল্লির জিটিবি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয় যুবতীকে। বর্তমানে তাঁর অবস্থা সঙ্কটজন বলেই জানা গিয়েছে।

অন্যদিকে, যুবতীর দাদার অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩০৭, ৫০৪, ৩৫৪ ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *